পানছড়িতে ইউপিডিএফ সদস্য সুখেন চাকমাকে অপহরণের পর গুলি করেছে দুর্বৃত্তরা

0
0

পানছড়ি : সেনা সৃষ্ট নব্য মুখোশ বাহিনীর অন্যতম হোতা জোলেয়ে চাকমা তরু ও যুব সমিতির পানছড়ি উপজেলা সভাপতি (জেএসএস এমএন লারমা) দীপন আলো চাকমার নেতৃত্বে এপোলো মারমা (পুলু), তুজিম চাকমা ও জগার চাকমাসহ আরো মাঙ্কি টুপি পড়া ৩জন সশস্ত্র দু্র্বৃত্ত অস্ত্রের মুখে ইউপিডিএফ সদস্য সুখেন চাকমাকে অপহরণের পর হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি করে। তবে ভাগ্য ভালো গুলির টার্গেট মিস হওয়ায় তিনি প্রাণে বেঁচে গেছেন।

গতকাল মঙ্গলবার (১২ ডিসেম্বর ২০১৭) পানছড়ি উপজেলার নলেন্দ্র পাড়ায় সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনার শিকার সুখেন চাকমা সিএইচটিনিউজ ডটকমকে বলেন, আমরা রাতের খাবার খাওয়ার পর রাত যাপনের জন্য অন্যত্র যাচ্ছিলাম। রাস্তায় বের হওয়ার সাথে সাথে তিনটি মোটর সাইকেলযোগে এসে দুর্বৃত্তরা গতিরোধ করে অস্ত্র ঠেকিয়ে গাড়িতে ওঠায়। এরপর লতিবান এলাকায় নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে তরু চলে যায়।

সেখানে কিছুক্ষণ রেখে দক্ষিণ নালকাটা তুলা গাছের পাশের হলুদ ক্ষেতে নিয়ে চোখ বেঁধে দেয়। হাত পা খোলো ছিল, বেঁধে দেয়নি। এর পর মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে গুলি করার চেষ্টা করে। এসময় ৩বার ট্রিগার টানার শব্দ শুনতে পাই। সম্ভবত আমার মৃত্যুর দিন আসেনি বলে ফায়ার হয়নি। এরপর তরুকে ফোন করে আরো একটি অস্ত্র আনা হয়। সে অস্ত্র দিয়ে ঘাড়ে ঠেকিয়ে গুলি করার সময় টের পেয়ে আমি মাথা নাড়লে টার্গেট মিস হয়ে যায়। সামন্য আহত হয়ে আমি দৌঁড় দিই। এরপর পার্শ্ববর্তী একটি বাড়িতে আশ্রয় নিই। এসময় সন্ত্রাসীরা দুটি মোটরসাইকেলযোগে পানছড়ির দিকে চলে যেতে দেখি।  আনুমানিক ২০/২৫ মিনিট পর তাঁরা আবার এসে আমাকে খোঁজ নিতে থাকে। আমি লুকিয়ে থাকি। এরপর স্থানীয়দের সহযোগীতায় সহযোদ্ধাদের কাছে ফিরে আসি।

তিনি আরো বলেন, আমাকে সন্ত্রাসীরা প্র্রায় আড়াই ঘন্টা তাঁদের হেফাজতে রাখে। সম্ভবত হত্যা করার উদ্দেশ্য ছিল বলে প্রথমে চোখ বেঁধে দেয়নি। মুখোশ পরাদের ছাড়া সবাইকে আমি চিনতে পেরেছি। মাঙ্কি টুপি পড়া যারা ছিল, মুখ দেখায়নি শুধু তাঁদের চেহারা চিনতে পারিনি। তবে স্থানীয়রা জানিয়েছেন এরা সবাই জেএসএস এমএন লারমা কর্মী।
_______
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.