পার্বত্য চুক্তি এখন ডেড লেটার: ইউপিডিএফ

0
0

ডেস্ক রিপোর্ট
সিএইচটিনিউজ.কম
ইউনাইটেড পিপল্‌স ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) সভাপতি প্রসিত খীসা আগামী ২ ডিসেম্বর পার্বত্য চুক্তির দেড় দশক পূর্তি উপলক্ষে আজ ৩০ নভেম্বর, শুক্রবার এক বিবৃতিতে বলেছেন সরকার ও জেএসএসের পার্বত্য চুক্তির বর্ষপূর্তি পালন জনগণের সাথে তামাশা ছাড়া আর কিছু নয়
পার্বত্য চুক্তি এখন একটি ডে লেটারে (Dead letter)  পরিণত হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, চুক্তি সম্পর্কে ইউপিডিএফের বিশ্লেষণ আজ সত্য বলে প্রমাণিত হয়েছে
ইউপিডিএফ নেতা সরকার ও জেএসএস (সন্তু গ্রুপ) উভয়কে জনগণের সাথে প্রতারণার দায়ে অভিযুক্ত করে বলেন, ‘একদিকে সরকারের পক্ষ থেকে চুক্তি বাস্তবায়নের প্রতিশ্রুতি, অন্যদিকে জেএসএসের আন্দোলনের হুমকি ছাড়া পার্বত্য জনগণ গত ১৫ বছরে কিছুই পায়নিএ দীর্ঘ সময়ে সরকার যেমন চুক্তি বাস্তবায়ন করেনি, জেএসএসও চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য আন্দোলন করেনিউভয়েই নিজেদের মধ্যে বোঝাপড়ার ভিত্তিতে সাধারণ জনগণের সাথে প্রতারণা করে যাচ্ছে এবং হীন ব্যক্তি ও গোষ্ঠীগত স্বার্থ চরিতার্থে নিযুক্ত রয়েছেএ ঘৃণ্য অপকর্মে আরও যুক্ত হয়েছে দেশের একশ্রেণীর স্বার্থান্বেষী ব্যক্তি, চক্র ও রাজনীতিক
তিনি বলেন, ‘সরকার চুক্তি বাস্তবায়ন না করলেও, বিগত দেড় দশক ধরে জনগণের ওপর অবর্ণনীয় নির্যাতন চালিয়েছে ও ভূমি বেদখল অব্যাহত রেখেছেঅন্যদিকে, জেএসএস সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলনের পরিবর্তে আঞ্চলিক পরিষদের গদিতে বসে জনগণের টাকা শ্রাদ্ধ করেছে ও ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত জিইয়ে রেখে ইউপিডিএফ ও জেএসএস লারমা গ্রুপের সাধারণ কর্মী সমর্থকদের খুন করেছেবাস্তবতঃ পার্বত্য চট্টগ্রামে দমন-পীড়ন জারি রাখতে শাসক চক্রকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছেফলে জনগণের জীবনে শান্তির বদলে চরম অশান্তি নেমে এসেছেচুক্তির পর থেকে আজ পর্যন্ত ইউপিডিএফের ২৩১ জন নেতাকর্মী, সমর্থর্ক সন্তু লারমা নেতৃত্বাধীন জেএসএস উপদলের হাতে ও অপর ১৩ জন নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে নিহত হয়েছেন বলে তিনি জানান
চুক্তিতে সরকারকে ব্ল্যাংক চেক (Blank cheque) দেয়া হয়েছে মন্তব্য করে প্রসিত খীসা আরো বলেন, ‘চুক্তির বাস্তবায়ন এখন সরকারের মর্জি ও দয়াদাক্ষিণ্যের ওপর নির্ভরশীলভূমি, সেটলার, সেনা প্রত্যাহার, জাতিসত্তার স্বীকৃতি, স্বায়ত্তশাসন — এসব মৌলিক ইস্যুগুলোর কোনটিই চুক্তির মাধ্যমে মীমাংসা করা হয়নিতাই চুক্তির দেড় দশক পরেও পার্বত্য চট্টগ্রামে শান্তি আসেনি
চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়ন না হওয়ার জন্য তিনি সরাসরি চুক্তি স্বারকারী পক্ষগুলোকে দায়ী করেন এবং বলেন, ‘ইউপিডিএফ অনেক আগেই চুক্তির দুর্বল দিকগুলো সনাক্ত করে সমালোচনা করেছিল, এখনও তাই করেচুক্তির মৌলিক দুর্বলতা সত্বেও ইউপিডিএফ বৃহত্তর স্বার্থে এই চুক্তির পূর্ণ বাস্তবায়নে সরকার ও জেএসএসকে আন্তরিকভাবে সহযোগিতা দেবে–এ ঘোষণাও দিয়েছেযা চুক্তি সম্পাদনকারী সরকার ও সন্তু লারমার নেতৃত্বাধীন জেএসএস উভয় পক্ষ অনুধাবন করতে ব্যর্থ হয়েছে
বিবৃতিতে ইউপিডিএফ নেতা পার্বত্য চট্টগ্রামে স্থায়ী শান্তি প্রতিষ্ঠা ও উন্নয়নের জন্য প্রথাগত ভূমি অধিকার ও জাতিসত্তার সাংবিধানিক স্বীকৃতি, সেটলারদের সমতলে সম্মানজনক পুনর্বাসন ও সেনা প্রত্যাহারসহ পার্বত্য জনগণের পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের দাবি মেনে নিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান
Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.