পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের দুই নেতাকে অন্যায়ভাবে আটকের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ

0
1

ঢাকা : বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর সভাপতি বিনয়ন চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি অংগ্য মারমা আজ রবিবার, ৩ জুন ২০১৮ সংবাদ মাধ্যমে প্রদত্ত এক যুক্ত বিবৃতিতে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক সুনীল ত্রিপুরা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক রিপন চাকমাকে অন্যায়ভাবে আটকের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন এবং অবিলম্বে আটক দুই নেতার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি করেছেন।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় অভিযোগ করে বলেন, আগামী ১২ জুন কল্পনা চাকমা অপহরণ দিবসকে সামনে রেখে হিল উইমেন্স ফেডারেশন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের একটি টিম সাভার এলাকায় সাংগঠনিক সফরে যায়। গতকাল ২ জুন ২০১৮, রবিবার তিন সংগঠনের সাংগঠনিক সফররত টিমটি আশুলিয়া থানাধীন গাজীরচট-এর বুড়িবাজার এলাকায় গেলে সংস্কারপনন্থী জেএসএস-এর দুর্বৃত্তরা তাদেরকে আটকিয়ে রেখে নানা হেনসস্থা করে এবং পরে পুলিশ ডেকে এনে উক্ত দুই নেতাকে পুলিশের হাতে তুলে দেয়। তাদের বিরুদ্ধে কোন মামলা-ওয়ারেন্ট না থাকা সত্তে¡ও পলিশ তাদেরকে আটক করে আশুলিয়া থানায় নিয়ে যায়। তাদেরকে রাঙামাটির নান্যাচরে শক্তিমান চাকমা হত্যা মামলার আসামি হিসেবে পুলিশের বরাত দিয়ে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমের খবরে প্রকাশ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ছাড়া আর কিছুই নয়।

মিথ্যা মামলায় ফাঁসিয়ে ইউপিডিএফ ও তার সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মী-সমর্থকদের দমন-পীড়ন চালানো হচ্ছে উল্লেখ করে নেতৃদ্বয় বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে অধিকার আদায়ের ন্যায়সঙ্গত আন্দোলন দমিয়ে রাখার হীন উদ্দেশ্যে একের পর এক নেতা-কর্মীদের অন্যায়ভাবে আটক করা হচ্ছে। এ ধরনের অন্যায় আটক ষড়যন্ত্রমূলক ও আইনের শাসনের চরম পরিপন্থি কাজ বলে নেতৃদ্বয় মন্তব্য করেন।

বিবৃতিতে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, খাগড়াছড়িতে ইউপিডিএফ নেতা মিঠুন চাকমা খুনের ঘটনায় জড়িত আসামীরা প্রকাশ্যে প্রশাসনের নাকের ডগায় ঘুরলেও তাদেরকে আটক করা হচ্ছে না। উপরন্তু তাদেরকে আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়ে খুন-খারাবিসহ সন্ত্রাসী কাজে লেলিয়ে দিয়ে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে রেখেছে।

বিবৃতিতে নেতৃদ্বয় অবিলম্বে সুনীল ত্রিপুরা ও রিপন চাকমাসহ এ যাবত আটক সকল নেতা-কর্মীর নিঃশর্ত মুক্তির দাবি জানান।
——————-
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.