পিসিপি’র দীঘিনালা উপজেলা শাখার ১০ম কাউন্সিল সম্পন্ন

0
181

দীঘিনালা প্রতিনিধি ।। ‘পূর্ণস্বায়ত্তশাসনই পার্বত্য চট্টগ্রামের একমাত্র রাজনৈতিক সমাধান’ এই স্লোগানে ও ‘অব্যাহত মা-বোনের সম্ভম হানি,ভূমি বেদখল ও সকল অন্যায়-অবিচারের শৃঙ্খল ভাঙতে পিসিপি’র পতাকাতলে সমবেত হই’ এই আহ্বানে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর দীঘিনালা উপজেলা শাখার ১০ম কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে।

আজ শুক্রবার, ২৭ নভেম্বর ২০২০ সকাল ১১ টায় দীঘিনালা সদর এলাকায় অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশন শুরুতেই গণতান্ত্রিক আন্দোলনের প্রথম শহীদ ভরদ্বাজ মুণি চাকমাসহ লড়াই সংগ্রাম করতে গিয়ে যারা নিজের জীবনকে আত্মবলিদান দিয়েছেন সে সকল বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

কাউন্সিলে পিসিপি’র দীঘিনালা উপজেলা সভাপতি মিঠুন চাকমার সভাপতিত্বে ও অর্থ সম্পাদক অনন্ত চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) দীঘিনালা উপজেলা সংগঠক ইয়ান চাকমা, পিসিপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমল ত্রিপুরা, পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা সাধারণ সম্পাদক নিকেল চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি জেসি চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের দীঘিনালা উপজেলা সভাপতি রিটেন চাকমা প্রমুখ।

সভায় বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, পাহাড়ে সেনাবাহিনী নিরাপত্তার নামে বেআইনীভাবে পাহাড়িদের ভূমি বেদখলসহ নানাভাবে শাসন-শোষণ চালাচ্ছে। বান্দরবানে ম্রো জাতিসত্তাসমূহকে উচ্ছেদ করে সেখানে পাঁচতারা হোটেল নির্মাণ করছে। সেটলার বাঙালিদের পূনর্বাসনের লক্ষ্যে দীঘিনালা সাধনাটিলায় পাহাড়িদের ভূমি বেদখলের জন্য নানান চক্রান্ত চালিয়ে যাচ্ছে।

বক্তারা আরো বলেন, পাহাড় ও সমতলে নারী নির্যাতন-ধর্ষণ-খুন-গুম-অপহরণ ও হত্যার ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটলেও সুষ্ঠু বিচার হচ্ছে না। সম্প্রতিককালে খাগড়াছড়ি সদর বলপেইয়ে আদামে পাহাড়ি নারীকে গণধর্ষণের ঘটনায় জড়িত ধর্ষকের বাঁচাতে প্রশাসন মরিয়া হয়ে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। যার কারণে উক্ত ধর্ষণের ঘটনায় মেডিকেল রিপোর্ট নেগেটিভ দিয়েছে।

তারা বলেন, ’৯৬ সালে পাহাড়ি নারী নেত্রী কল্পনা চাকমার অপহরণের সাথে জড়িত  তৎকালীন সেনাবাহিনীর লেঃ ফেরদৌস গংদের বিচার হয়নি, তুমাচিং, সবিতা চাকমা ও কুমিল্লায় ভিক্টোরিয়া কলেজের ছাত্রী সোহাগী জাহান তনুকে ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা সুষ্ঠু বিচার হয়নি। এসব ঘটনার সরকার প্রশাসনের নিরপেক্ষ ভূমিকা না থাকায় এবং সুষ্ঠু বিচার না হওয়ায় অপরাধীরা পুনরায় ঘটনা ঘটাতে সাহস পাচ্ছে।

বক্তারা, জাতিসত্তাসমূহের অস্তিত্ব রক্ষা ও নারীদের সম্ভ্রম রক্ষার্থে পাহাড়-সমতলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াই সংগ্রাম বেগবান করার জন্য ছাত্র-যুব-নারী সমাজের প্রতি আহ্বান জানান। এছাড়াও সরকার ও পাহাড়ি দালাল-প্রতিক্রিয়াশীল গোষ্ঠীর নানান প্রতিবন্ধকতা উপেক্ষা করে সকল প্রতিকূল পরিস্থিত মোকাবেলা করে সংগঠনকে এগিয়ে নেয়ার জন্য নেতা-কর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান।

বক্তারা অবিলম্বে সরকার ও রাষ্ট্রীয় বাহিনী কর্তৃক নামে বেনামে পাহাড়িদের ভূমি বেদখলের ষড়যন্ত্র বন্ধ, পাহাড় ও সমতলে নারী নির্যাতন ধর্ষণ-খুন-গুম-হত্যা ও অপহরণের ঘটনার সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান।

পরে উপস্থিত সকলের সর্বসম্মতিক্রমে অনন্ত চাকমাকে সভাপতি ও নিল রতন চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি গঠন করা হয়।

নতুন কমিটিকে শপথ বাক্য পাঠ করান পিসিপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অমল ত্রিপুরা।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত/প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.