পিসিপি’র লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার ১৪তম কাউন্সিল ও ছাত্র সমাবেশ

0
3

লক্ষ্মীছড়ি : বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার ১৪তম কাউন্সিল ও ছাত্র সমাবেশ আজ বুধবার (১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮) বর্মাছড়ি ইউনিয়নের কুতুকছড়িতে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

“জাতীয় দুদিনে ছাত্র সমাজই কান্ডারী, ছাত্র নেতা তপন-এল্টন, যুব নেতা পলাশ চাকমাসহ সকল শহীদদের আত্মবলিদান থেকে শক্তি আহরণ করে পূর্ণস্বায়ত্তশাসন লড়াই জোরদান করুন” এই শ্লোগানে বুধবার সকাল ১১টায় অনুষ্ঠিত কাউন্সিল ও ছাত্র সমাবেশে পিসিপি’র লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক নয়ন চাকমার সভাপতিত্বে ও সাংগঠনিক সম্পাদক পাইসুইমং মারমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ-এর লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সংগঠক আপ্রুসি মারমা, পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুনয়ন চাকমা ও খাগড়াছড়ি জেলা সভাপতি অমল ত্রিপুরা। এছাড়া এতে আরো উপস্থিত ছিলেন পিসিপি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার দপ্তর সম্পাদক অর্পণ চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক ক্যামরন চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের জেলা নেত্রী এন্টি চাকমা ও শিক্ষিকা ক্রচিং মারমা।

সমাবেশ শুরুতে শহীদদের প্রতি দাঁড়িয়ে ১ মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সমাবেশে অমল ত্রিপুরা বলেন “পার্বত্য চট্টগ্রামে মেধা শূণ্য করার সরকারের যে ষড়যন্ত্র তারই অংশ হিসেবে পরিকল্পিতভাবে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে তপন, এল্টন ও পলাশদের হত্যা করা হয়েছে। এর আগে একই উদ্দেশ্যে হত্যা করা হয়েছিল মিঠুন চাকমাসহ আরো অনেককে। সরকারের এই ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজকে রুখে দাঁড়াতে হবে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণের ন্যায্য অধিকার পূর্ণস্বায়ত্তশাসন প্রতিষ্ঠার লড়াইয়ে সামিল হতে হবে।

সুনয়ন চাকমা বলেন, পার্বত্য জেলা পরিষদের মাধ্যমে অযোগ্য শিক্ষক নিয়োগের কারণে পাহাড়ের শিক্ষা কাঠামো ধ্বংস হচ্ছে। যার ফলে পার্বত্য চট্টগ্রামে শিক্ষার মান ও পাশের হার দিন দিন কমে যাচ্ছে। তিনি বলেন, সরকার পাহাড়ি জনগণের উপর বিভিন্নভাবে দমন-পীড়ন চালিয়ে যাচ্ছে। ভূমি বেদখল করা হচ্ছে, নারী নির্যাতন বেড়ে চলেছে। গত ১৮ আগস্ট খাগড়াছড়িতে সংস্কার-নব্য মুখোশ সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে তপন, এল্টন, পলাশ চাকমাসহ ৭ জনকে হত্যা করেছে। এই সকল অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজকে এগিয়ে আসতে হবে। শহীদদের আত্মবলিদান থেকে শক্তি সঞ্চয় করে আগামী দিনের লড়াই সংগ্রামকে বেগবান করার জন্য তিনি ছাত্র সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।

আপ্রুসি মারমা বলেন, সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামসহ দেশের সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহকে সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত করার জন্য ন্যায্য কোটা ব্যবস্থা তুলে দিতে চাইছে। এর বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন গড়ে তোলার জন্য তিন ছাত্র সমাজসহ জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

সমাবেশ থেকে বক্তারা পার্বত্য চট্টগ্রাম থেকে সেনাশাসন ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অগণতান্ত্রিক ১১ নির্দেশনা প্রত্যাহারপূর্বক অন্যায় নিপীড়ন-নির্যাতন বন্ধ ও সুষ্ঠু গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করা, সংখ্যালঘু জাতিসত্তাসমূহের জন্য ন্যায্য কোটা ব্যবস্থা বহাল রাখা ও তপন, এল্টন, পলাশ চাকমাসহ ৭ খুনের ঘটনায় জড়িত সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে অনুষ্ঠিত কাউন্সিল অধিবেশনে নয়ন চাকমাকে সভাপতি, পাইসুইমং মারমাকে সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করে ১৯ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি ঘোষণা করেন পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুনয়ন চাকমা।
————————
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.