প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে খাগড়াছড়িতে গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের আলোচনা সভা

0
2

সিএইচটি নিউজ বাংলা, ৫ এপ্রিল ২০১৩, শুক্রবার

গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম প্রতিষ্ঠার ১১ বছরপূর্তিতে খাগড়াছড়িতে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। জাতীয় অস্তিত্ব হুমকির মুখে যুব সমাজ হাত গুটিয়ে বসে থাকতে পারেনা, জাতিসত্তার স্বীকৃতি, অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে সামিল হোন’ এই  শ্লোগানকে ধারণ করে আজ ৫ এপ্রিল বেলা ১টায় স্বনির্ভরস্থ ঠিকাদার সমিতি ভবনে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সভাপতি নতুন কুমার চাকমা। আলোচনা সভায় আরো উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ-এর খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সমন্বয়ক প্রদীপন খীসা, নির্বাচিত জুম্ম জনপ্রতিনিধি সংসদের সভাপতি ও পানছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সর্বোত্তম চাকমা, পিসিপি’র সাবেক সভাপতি ও ইউপিডিএফ খাগড়াছড়ি ইউনিট সদস্য অংগ্য মারমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি কণিকা দেওয়ান, সাজেক ভূমি রক্ষা কমিটির সভাপতি জ্ঞানেন্দু চাকমা, সাজেক নারী সমাজের সভানেত্রী নিরূপা চাকমা ও পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আপ্রুসি মারমা। স্বাগত বক্তব্য রাখেন যুব ফোরমের কেন্দ্রীয় সদস্য জিকো ত্রিপুরা।

সভা পরিচালনা করেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক মাইকেল চাকমা। 
আলোচনা সভায় জনপ্রতিনিধি সংসদের সভাপতি ও পানছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সর্বোত্তম চাকমা বলেন, যুব সমাজ রাজনৈতিকভাবে সংগঠিত হলে আমাদের অস্তিত্ব রক্ষা করা সম্ভব। তিনি বলেন, জাতিসত্তা জনগনণর অধিকার আদায়ের লক্ষ্যে নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি সংসদ সচেষ্ট রয়েছে।

ইউপিডিএফ খাগড়াছড়ি জেলা ইউনিটের সমন্বয়ক প্রদীপন খীসা বলেন, জনসংহতি সমিতি জুম্ম জনগণের অধিকার প্রতিষ্ঠা না করে সরকারের সাথে চুক্তিকে উপনীত হয়। এই চুক্তির ফলে অধিকার প্রতিষ্ঠার বিপরীতে দীর্ঘ পনের বছর ধরে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত চলছে। এই ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধে যুব সামাজকে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে হবে। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে যুব সমাজকে নৈতিকভাবে ধ্বংস করার জন্য সরকার নানাভাবে চক্রান্ত চালাচ্ছে। সর্বনাশা মাদক খাইয়ে যুব সমাজের প্রতিবাদী সত্তাকে ধ্বংস করা হচ্ছে। তাই মাদক মুক্ত যুব সমাজ প্রতিষ্ঠায় যুব ফোরামকে সর্বাত্মক প্রচেষ্টা চালাতে হবে।
গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি নতুন কুমার চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সরকার কেবল ভূমি বেদখল করেই ক্ষান্ত হচ্ছে না, প্রাকৃতিক সম্পদ ও খনিজ সম্পদ বেদখল করে পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণকে বঞ্চিত রেখে শাসকগোষ্ঠী বাইরে পাচার করে নিয়ে যাচ্ছে। সরকার পঞ্চদশ সংশোধনী আইন পাশ করে সংখ্যলঘু জাতিসমূহকে বাঙালী বানিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আজ আমাদের জাতীয় অস্তিত্ব হুমকির সম্মুখীন।
তিনি জাতিসত্তার স্বীকৃতি, অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে যুব ফোরামের পতাকা তলে সমবেত হয়ে সংগ্রামে সামিল হওয়ার জন্য যুব সমাজের প্রতি আহ্বান জানান।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.