বাঘাইছড়িতে কল্পনা অপহরণ দিবস পালন, অপহরণকারী লে. ফেরদৌস গংদের বিচার দাবি

0
120

বাঘাইছড়ি প্রতিনিধি ।। রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে হিল উইমেন্স ফেডারেশন নেত্রী কল্পনা চাকমা অপহরণ দিবস পালিত হয়েছে।

আজ ১২ জুন ২০২১, শনিবার সকাল ১১টায় হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির উদ্যোগে কল্পনা চাকমা অপহরণের ২৫ বছর উপলক্ষে এক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

সভা থেকে চিহ্নিত অপহরণকারী লে. ফেরদেৌস গংদের বিচারের দাবি জানানো হয়েছে।

‌‘পাহাড়ে নারীর নিরাপত্তা রক্ষার্থে ও ভূমি বেদখল প্রতিরোধ লড়াইয়ে HWF-এর সাথে যুক্ত হোন’ এই স্লোগানকে বাঘাইছড়ি উপজেলার বঙ্গলতলিতে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় সদস্য জেসি চাকমা।

শিউলী ত্রিপুরার সঞ্চালনায় সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ সংগঠক আসেন্টু চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর কেন্দ্রীয় সদস্য সুমন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের বাঘাইছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি রত্ন জ্যোতি চাকমা, বঙ্গলতলী ইউপি সদস্য কাজলিকা চাকমা প্রমুখ।

আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সনের আজকের এই দিনে বাঘাইছড়ির নিউ লাল্যাঘোনা গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে লে. ফেরদেৌস গংদের দ্বারা অপহরনের শিকার হন তৎকালীন হিল উইমেন্সে ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক কল্পনা চাকমা। ঘটনার পর পরিবারের পক্ষ থেকে কল্পনা চাকমার বড় ভাই কালিন্দি কুমার চাকমা চিহ্নিত অপহরণকারী লে. ফেরদৌস, ভিডিপি’র নুরুল হক ও সালেহ আহম্মেদকে আসামি করে বাঘাইছড়ি থানায় মামলা দায়ের করলেও থানা কর্তৃপক্ষ পরিকল্পিতভাবে আসামিদের নাম বাদ দিয়ে মামলা রুজু করে। ফলে অভিযুক্তরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে। দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে  শুধু তদন্ত ও শুনানীর নামে কালক্ষেপনের মাধ্যমে অপহরণকারীদের রক্ষায় মরিয়া প্রচেষ্টা চালানো হচ্ছে। মামলাটির তদন্তে ৩৯ জন তদন্ত কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করলেও সকলেই পক্ষপাতিত্বের আশ্রয় নিয়ে ‘অপহরণের রহস্য উদ্ঘাদন করা যায়নি’ মর্মে প্রতিবেদন দিয়ে অপরাধীদের রক্ষা করেছে।

বক্তারা কল্পনা চাকমার সন্ধান দিতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, কল্পনা চাকমা অপহরণ ঘটনাটি শুধু পার্বত্য চট্টগ্রামে নয়, দেশ-বিদেশে বহুল আলোচিত একটি ঘটনা। কল্পনার পরিবার ও পার্বত্য চট্টগ্রামের জনগণ দীর্ঘ ২৫ বছর ধরে কল্পনা চাকমাকে খুঁজে বেড়াচ্ছে। কিন্তু সরকার কল্পনার সন্ধান দিতে পারছে না। দেশের একজন নাগরিক হিসেবে কল্পনা চাকমার সন্ধান দেয়ার দায়িত্ব সরকারের। আমরা মনে করি অভিযুক্ত লে. ফেরদেৌস ও তার গংদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনলে অবশ্যই কল্পনার সন্ধান পাওয়া যাবে।

বক্তারা আরো বলেন, কল্পনা চাকমা পার্বত্য চট্টগ্রামে একজন প্রতিবাদী কণ্ঠের নাম। তিনি কখনো অন্যায়-অবিচার মেনে নেননি, সর্বদা প্রতিবাদ করে গেছেন। তার এই প্রতিবাদী কণ্ঠ রুদ্ধ করার মাধ্যমে পার্বত্য চট্টগ্রামে নারীদের দমিয়ে রাখার জন্যই তাকে অপহরণ করা হয়েছে। কিন্তু পাহাড়ি নারীরা দমিয়ে যায়নি। তারা কল্পনার উত্তরসূরী হয়ে লড়াই-সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে।

তারা বলেন, কল্পনা চাকমা অপহরণের সুষ্ঠু বিচার না হওয়া পর্যন্ত রাষ্ট্র এর থেকে দায়মুক্ত হতে পারবে না। এটা রাষ্ট্রের বড় ক্ষত হয়ে থাকবে।

বক্তারা আর কালক্ষেপন না করে চিহ্নিত অপহরণকারী লে. ফেরদেৌস ও তার সহযোগীদের আইনের আওতায় এনে সুষ্ঠু বিচারের দাবি জানান।


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.