বান্দরবানে সন্তু গ্রুপের হামলায় ৩ পিসিপি সদস্য আহত

2
0
বান্দরবান প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম

বান্দরবানে সন্তু লারমার অনুগতদের হামলায় গতকাল ১৫ জুন শুক্রবার পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের তিন সদস্য গুরুতর আহত হয়েছেনতাদেরকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছেইউপিডিএফ বান্দরবান ইউনিটের সংগঠক ছোটন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক থুইক্য চিং মারমা উক্ত হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন
জানা যায়, গতকাল শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে সন্তু গ্রুপের সন্ত্রাসীরা পিসিপি সমর্থক উমংহ্লা মারমাকে (১৫) রাজভিলায় মারধর করেতিনি বান্দরবানের ক্যান্টনমেন্ট পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজে দশম শ্রেণীর ছাত্র এবং বালাঘাটায় থেকে লেখাপড়া করেনঐদিন তিনি নিজ বাড়ি রাজভিলায় গেলে এ ঘটনা ঘটে
এরপর তাকে আহত অবস্থায় বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কর্মী পাইমং মারমা (১৯) ও উটিং মারমা (২০) তাকে দেখতে যানএ সময় সেখানে অপেক্ষায় থাকা সন্তু লারমার অনুগত ২০ -২৫ জন সন্ত্রাসী তাদের দুজনকে ধরে লোকজনের সামনে মারধর করতে করতে মহেন্দ্রগাড়িতে তুলে বান্দরবান শহরের উজানী পাড়ায় নিয়ে যায়

সেখানে তাদের দুজনকে আলাদা করে লাঠি ও রড দিয়ে মারধর করা হয়এতে পাইমং চোখে ও উটিং মাথায় আঘাতপ্রাপ্ত হনমারধরের পর পাইমংকে সন্ত্রাসীরা অজ্ঞান অবস্থায় ফেলে রেখে যায়পরে জ্ঞান ফিরলে তিনি একটি সিএনজি নিয়ে বালাঘাটায় ফিরে যানউটিংকে তার আগে সন্ত্রাসীরা মারধরের পর ছেড়ে দেয়পরে এলাকাবাসী ও পিসিপি সদস্যরা তাদের দুজনকে বান্দরবান সদর হাসপাতালে ভর্তি করে দেয়
পাইমং এর ভাষ্য মতে, তিনি হামলাকারীদের কয়েকজনকে চিনতে পেরেছেনএরা হলো উজানী পাড়া গ্রামের পুলু মং মারমার ছেলে উবাচিং মারমা (২৮), উখিংহলা মারমা, মালুঅং মারমা, মংস্তু মারমা, উসাইনু মারমা, উক্য ওয়াই চাক, দীপায়ন চাকমা, বিকাশ চাকমা, পিন্টু চাকমা ও উসলা মারমা
ইউপিডিএফ বান্দরবান ইউনিটের সংগঠক ছোটন কান্তি তঞ্চঙ্গ্যা ও পিসিপির সাধারণ সম্পাদক থুইক্য চিং মারমা এক যৌথ বিবৃতিতে উক্ত হামলার তীব্র নিন্দা এবং অবিলম্বে হামলাকারী সন্তু লারমার লেলিয়ে দেয়া সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারপূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়ার দাবি জানিয়েছেন
তারা বলেন, সন্তু লারমা আন্দোলনের পথ ভুলে এখন সুবিধাবাদীতার নর্দমায় পড়ে গিয়ে হাবুডুবু খাচ্ছেন এবং ডুবন্ত মানুষ যেমন খড়কুটো ধরে হলেও রক্ষা পেতে চায় তেমনি সন্তু লারমাও সন্ত্রাসকে আশ্রয় করে রাজনীতিতে নিজের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন
কিন্তু সন্ত্রাসের যে আগুন তিনি জ্বালিয়েছেন সেই আগুনেই তিনি পুড়ে গিয়ে ছারখার হয়ে যাবেনবলে তারা মন্তব্য করেন

Print Friendly, PDF & Email

2 মন্তব্য

  1. This is not one incident of CHT. But many more incident happened every day. But what is the hell Bangladesh government don't work for indigenous people????Why Bangladesh is being called an Republic Country??? United Nation should take more step on indigenous people of Bangladesh as well as India being as a neighbor country.

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.