বালাতি ত্রিপুরাকে হত্যার প্রতিবাদে খাগড়াছড়িতে হিল উইমেন্স ফেডারেশনের বিক্ষোভ

0
0

খাগড়াছড়ি : পানছড়ি পাইয়ুং পাড়ার বাসিন্দা বালাতি ত্রিপুরাকে ধর্ষণের পর গলা কেটে হত্যার প্রতিবাদে ও হত্যাকারী সেটলার করিম, নূরু ও মানিককে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে খাগড়াছড়ি শহরে বিক্ষোভ মিছিল ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) খাগড়াছড়ি জেলা শাখা।21728076_1264188993726761_4390179208668534922_n

মিছিলটি আজ বৃহস্পতিবার (১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭) দুপুর সাড়ে ১২ টায় শহরের সাংস্কৃতি ইনিস্টিটিউট সামনে থেকে বের হয়ে স্বনির্ভরের তিন রাস্তা মোড়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সধারণ সম্পাদক অবনিকা চাকমার সঞ্চালনায় ও সংগঠনিক সম্পাদক রেশমি মারমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক জিকো ত্রিপুরা ও বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) খাগড়াছড়ি জেলা শাখার ভারপ্রাপ্ত সভাপতি তপন চাকমা ও পাইয়ং পাড়ার গ্রামে প্রতিনিধি সাধন ত্রিপুরা প্রমূখ। এছড়াও সমাবেশে বালাতি ত্রিপুরার স্বামী চন্দ্র বিশ্ব ত্রিপুরা উপস্থিত ছিলেন।

সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে নারীরা ঘরে বাইরে কর্মস্থলে কোথাও নিরাপদ নই। অবৈধ সেটলার বাঙালিদের কর্তৃক প্রতিনিয়ত ধর্ষণ এবং হত্যার শিকার হচ্ছে। গত ক’দিন আগে খাগড়াছড়ি জেলা সদরে মানসিক প্রতিবন্ধী এক তরুণীকে সেটলার শাহদাৎ কর্তৃক ধর্ষণ ঘটনার পর নিজ জমিতে কাজ করতে গিয়ে বালাতি ত্রিপুরা ধর্ষণ ও খুনের ঘটনা ঘটলো।11

বক্তারা আরো বলেন, নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনায় শাসকগোষ্ঠীর ইন্ধন রয়েছে। হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নেত্রী কল্পনা চাকমা চিহ্নিত অপহরণকারী ও সেনা কর্মকর্তা লেঃ ফেরদৌস ২০ বছর ধরে এখনো দিব্যি ঘুরে বেড়াচ্ছে। তার বিরুদ্ধে সরকার আজ পর্যন্ত কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই এটা পরিস্কার যে সরকারই খুনি ও ধর্ষণকারী সেটলার এবং সেনা সদস্যদের রক্ষা করছে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামে খুন-ধর্ষণের মতো জঘন্য অপরাধ সংঘটিত করতে উৎসাহ দিচ্ছে।

সমাবেশ থেকে বক্তারা, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ঘরে, বাইরে, কর্মস্থলে নারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের দাবি জানান। এবং বালাতি ত্রিপুরাকে ধর্ষণ ও হত্যার ঘটনার সাথে জড়িত সেটলারদের অবিলম্বে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি জানান।222

সমাবেশ শেষে মিছিলটি স্বনির্ভর তিন রাস্তার মোড় থেকে স্বনির্ভর বাজার ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর কার্যালয়ের সামনে গিয়ে শেষ হয়।

উল্লেখ্য, গত ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ সকালে পানছড়ির পাইয়ুং পাড়ার বাসিন্দা বালাতি ত্রিপুরা নিজেদের ধন্যজমিতে কাজ করতে যায়। দিন শেষে বাড়িতে না ফেরায় তার স্বামী চন্দ্র বিশ্ব ত্রিপুরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন এবং তার ছেলেসহ খুঁজতে বের হন। খুঁজতে খুঁজতে জমি সংলগ্ন ছড়ায় বালাটি ত্রিপুরার গলাকাটা লাশ পরে থাকতে দেখেন। পরে স্থানীয় চেয়ারম্যান ও পুলিশের সহযোগিতায় তার লাশ উদ্ধার করা হয়। পরদিন ১৩ সেপ্টেম্বর তাঁর স্বামী বাদী হয়ে পানছড়ি থানায় পার্শ্ববর্তী এলাকার মোঃ করিম, মোঃ নূরু ও মোঃ মানিক নামে তিন জন সেটলারকে আসামি করে মামলা করেন।
——————
সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.