ভোট ডাকাতির মাধ্যমে বিজয় ছিনিয়ে নেয়ার অভিযোগ দীঘিনালা ও পানছড়ির দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর

0
1

chairman press conferenceখাগড়াছড়ি : গত ২৩ এপ্রিল অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনে ভোটকেন্দ্র দখল, সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা ও হুমকিমূলক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে ভোট ডাকাতির মাধ্যমে নিশ্চিত বিজয় ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন দীঘিনালা উপজেলার কবাখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান প্রাথী বিশ্ব কল্যাণ চাকমা ও পানছড়ি সদর ইউনয়নের চেয়ারম্যান প্রার্থী প্রিয়ংকর চাকমা। এ সময় কবাখালী ইউপি’র অপর চেয়ারম্যান প্রার্থী কমল বিকাশ চাকমাও উপস্থিত ছিলেন।

গতকাল রবিবার (২৪ এপ্রিল) সন্ধ্যায় খাগড়াছড়ি শহরের মহাজন পাড়াস্থ টং রেস্টুরেন্ট এন্ড কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে তারা অভিযোগ করে বলেন, দীঘিনালার কবাখালী ইউনিয়নের হাচিনসনপুর গ্রামে পাহাড়িদের উপর সাম্প্রদায়িক হামলা চালিয়ে জাহাঙ্গীর হোসেনের পক্ষে সেটলাররা ভোটকেন্দ্র দখল করে এক তরফাভাবে জালভোট দিয়েছে। এতে নির্বাচনী এজেন্টরা বাধা দেয়ার চেষ্টা করলে দীঘিনালা ক্যান্টনমেন্টের সেনাবাহিনীর সদস্যরা বাঙালিদের পক্ষ নিয়ে পাহাড়িদের মারধর করে। অপরদিকে সেটলাররা আর্মিদের সহায়তায় চিক্ক মনি চাকমার বাড়ি ও ইউনিসেফ পরিচালিত একটি পাড়া কেন্দ্র ও একটি মোটর সাইকেলে অগ্নিসংযোগ করে এবং পাহাড়িদের অপর ৭টি বাড়িঘর ও ৩টি দোকানে লুটপাট চালায়। পরে সেটলাররা হাসিনচনপুর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র, হাসিনচনপুর সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র ও হালিমিয়া মাদ্রাসা কেন্দ্র দখল করে জাল ভোট দেয়। এ হামলার কারণে পাহাড়িরা এ সব কেন্দ্রে ভোট দিতে পারেনি।

তারা অভিযোগ করে আরো বলেন, বেলা ২টার দিকে তারাবন্যা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর সদস্যরা মিথ্যা অজুহাতে ভোট দিতে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা পাহাড়িদের এলোপাথারী মারধর করে। এতে ভয়ে পাহাড়িরা পালিয়ে গিয়ে আর ভোট দিতে পারেনি। একইভাবে বেলা আড়াইটার দিকে সেনা সদস্যরা জোড়া ব্রীজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রেও ভোট দেয়ার জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা পাহাড়িদের এলোপাথারীভাবে মারধর করলে এক নারীসহ ৪ জন পাহাড়ি আহত হয়। ফলে তারা কেউ আর ভোট দিতে পারেনি।

লিখিত বক্তব্যে পানছড়ি সদর ইউনিয়নের ৫টি কেন্দ্রে ব্যাপক ভোট কারচুপির ঘটনা তুলে ধরে বলা হয়, ১নং পানছড়ি সদর ইউনিয়নের মোহাম্মদপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়, পানছড়ি মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, তালুকদার পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হাসান নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও পাইলট ফার্ম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র দখল করে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর পক্ষে সেটলার বাঙালিরা ইচ্ছেমত জালভোট প্রদান করেছে। সেখানে কোন পাহাড়ি ভোট দিতে যেতে পারেনি।

তারা অবিলম্বে কবাখালীর হাসিনচনপুরে পাহাড়িদের উপর সাম্প্রদায়িক হামলাকারীদের গ্রেফতার, ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ প্রদান ও কারচুপি হওয়া ভোট কেন্দ্রগুলোতে ভোটের ফলাফল বাতিল করে পুননির্বাচনের দাবি জানান।
—————-

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.