মহালছড়িতে কিশোরীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে আটক ২

0
0

মহালছড়ি প্রতিনিধি, সিএইচটিনিউজ.কম

কিশোরীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে আটক মো: আব্দুস সালাম ও মো: মাঈন উদ্দিন। ছবি: প্রতিনিধি
কিশোরীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে আটক মো: আব্দুস সালাম ও মো: মাঈন উদ্দিন। ছবি: প্রতিনিধি

খাগড়াছড়ির মহালছড়িতে সোনিয়া আক্তার (ছদ্মনাম) নামে ১২ বছরের এক কিশোরীকে অপহরণ করে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগে মহালছড়ির মানিক ডাক্তার পাড়ার মৃত মতিউর রহমান এর পুত্র মো: আব্দুস ছালাম (২৬) ও নার্সারী পাড়ার মৃত- বেলায়েত গাজীর পুত্র  মো: মাইনউদ্দিন (৩৬) নামে দুই অপহরণকারীকে স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় পুলিশ আটক করে  বৃহস্পতিবার (২২ মে) জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে । এ ঘটনায় মহালছড়ি থানায় কিশোরীর বড় ভাই মো: নুর নবী বাদী হয়ে একটি নারী ও শিশু নির্যাতন দমন (সংশোধিত) ৭/৯(ত) ধারায় মামলা দায়ের করেছে । যার মামলা নং ০১ ।

মামলার এজাহার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাতৃহীন অপহৃতা ও ধর্ষিণের শিকার ওই কিশোরীর পিতা  আবুল কাশেম মাটিরাংগার তাইন্দং তবলছড়ি গ্রামের বাসিন্দা ও স্থানীয় বাজারের কাঁচা তরিতরকারী ব্যবসায়ী । বাদী এজাহারে উল্লেখ করেছেন, গত ৭ মে সকাল আনুমানিক  ৮টায় ওই কিশোরী মহালছড়ি’র খালু শরীফের বাসা থেকে  বাবার বাড়িতে যাওয়ার জন্য মাটিরাঙ্গা উদ্দেশ্যে বের হয় । বাসা থেকে বের হয়ে বাসষ্ট্যান্ড পৌঁছামাত্র সেখানে আগে থেকে অপেক্ষারত আবদুস ছালাম ও মাঈন উদ্দিন মোটর সাইকেল দিয়ে মেয়েটিকে তাইন্দং বাবার বাড়িতে পৌঁছে দেওয়ার কথা বলে অত্যন্ত সুকৌশলে অপহরণের উদ্দেশ্য দীঘিনালাতে নিয়ে যায় । সেখানে বাসা ভাড়া করে ওই কিশোরীকে আটকে রেখে অপহরণকারীরা তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে জোর পূর্বক পালাক্রমে ধর্ষণ করে । তখন সোনিয়া চিৎকার করতে চাইলে তাকে মৃত্যুর ভয় দেখানো হয় । দীঘিনালায় কিছুদিন রাখার পর তাকে সেখান থেকে এনে মহালছড়ির মাইসছড়ি ইউনিয়নের কাটিংটিলা নামক স্থানে গভীর জঙ্গলের ভিতর আটকে রেখে সেখানেও উক্ত দুই লম্পট মেয়েটিকে এ ক’দিন যাবত ধর্ষণ করে আসছে । গত ২১মে বুধবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে সন্দেহ জনকভাবে এলাকায় ঘোরাফেরা করার সময় মেয়েটির বড় ভাই ও স্থানীয় লোকজনের সহযোগীতায় দুই অপহরণকারীকে আটক করে। অপহরণকারীদের লোকজন ও পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে অপহরণ ও ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে। এরপর এদের তথ্যের ভিত্তিতে অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার কিশোরীকে  উদ্ধার করে অপহরণকারী দু’জন সহ থানায় সোপর্দ করা হয় ।

এ ব্যাপারে মহালছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ সেমায়ূন কবির চৌধুরী ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, মেয়েটির বড়ভাই নুরনবী বাদী হয়ে থানায় একটি মামলা হয়েছে। মেয়েটিকে মেডিকেল চেক আপের জন্য খাগড়াছড়ি সদর হাসপাতালে এবং অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে আটক দুই আসামীকে খাগড়াছড়ি জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মামলার এজাহার অনুযায়ী তদন্ত সাপেক্ষে আসামীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
—————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.