মহালছড়িতে পিসিপি’র নবীণ বরণ ও কলেজ শাখার কাউন্সিল সম্পন্ন

0
1

Exif_JPEG_420

মহালছড়ি (খাগড়াছড়ি): ‘জাতীয় সংকটময় পরিস্থিতিতে ছাত্র সমাজ কান্ডারী’, ‘সার্টিফিকেট আর চাকরি অর্জনের শিক্ষা ব্যবস্থা চেয়ে অস্তিত্ব রক্ষার শিক্ষা ব্যবস্থা অতিব জরুরি’ এই স্লোগানে খাগড়াছড়ি জেলার মহালছড়িতে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র(পিসিপি)-এর আয়োজনে এইচএসসি ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের নবীণ শিক্ষার্থীদের বরণ ও মহালছড়ি ডিগ্রী কলেজ শাখার ৭ম কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে।

রবিবার (১৭ জুলাই) সকাল ১০টায় মহালছড়ি ডিগ্রী কলেজের একটি হলরুমে অনুষ্ঠিত নবীণ বরণ ও কাউন্সিল অনুষ্ঠানে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি’র) মহালছড়ি ডিগ্রী কলেজ শাখার আহবায়ক মেনন চাকমার সভাপতিত্বে ও সদস্য সচিব সুখময় চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, পিসিপি’র খাগড়াছড়ি জেলা শাখার অর্থ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মেনাকি চাকমা, পিসিপি’র চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিনিধি অংকন চাকমা ও খাগড়াছড়ি সরকারি কলেজ শাখার সভাপতি সোনায়ন চাকমা প্রমূখ। স্বাগত বক্তব্য রাখেন লেলিন চাকমা।

অনুষ্ঠান শুরুতে শোক প্রস্তাব পাঠ করেন প্রথম বর্ষের ছাত্রী অন্তরা চাকমা। পরে নবীণ শিক্ষার্থীদের রজনী গন্ধা ফুল দিয়ে বরণ করে নেয় কলেজ কমিটির নেতৃবৃন্দ।

Exif_JPEG_420

অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, দেশের শিক্ষা ব্যবস্থা করুণ পরিণতির দিকে ধাবিত হচ্ছে । প্রতিটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষকের সংকট, অপর্যাপ্ত পরিমাণে টেবিল, চেয়ার, হল রুমের সংকটসহ চলছে শিক্ষা ক্ষেত্রে বাণিজ্যকরণ। যার কারণে ছাত্ররা সঠিক শিক্ষা অর্জন করতে পারছে না।

বক্তারা আরো বলেন “পাবর্ত্য জেলা পরিষদ” পাবর্ত্য চট্টগ্রামে শিক্ষা ব্যবস্থাকে পুরো ধ্বংসের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে। তারা শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে অসহনীয় দূর্নীতি করছে। যার ফলে যোগ্য মেধাবী শিক্ষকের ঘাটতি পড়েছে। যা শিক্ষার ক্ষেত্রে হুমকি স্বরুপ। তারা অবিলম্বে জেলা পরিষদের দূনীতি বন্ধ করে শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে মেধাবী যোগ্য শিক্ষক নিয়োগের আহ্বান জানান।

বক্তারা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের শিক্ষা ক্ষেত্রে প্রাথমিক স্তরে নানা সমস্যা জর্জরিত থাকলেও সরকার সেগুলো সমাধান না করে  উন্নয়নের নামে পাহাড়িদের ভূমি বেদখল করে রাঙামাটিতে মেডিক্যাল কলেজ ও বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছে।

বক্তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, সরকার পাহাড়ি জাতির অস্তিত্ব ধ্বংস করার জন্য নানান ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে। ২০১১ সালে সংবিধানের পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে বাঙালি জাতীয়তাবাদ চাপিয়ে দিয়েছে, যা খুবই নিন্দনীয়।

বক্তারা নবীণ ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্দেশ্য করে বলেন, শুধু শিক্ষা অর্জন করলে হবেনা স, নিষ্ঠাবান ও আদর্শিক ছাত্র হিসেবে গড়ে উঠতে হবে। প্রত্যেকটি ছাত্র-ছাত্রী নিজেকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করে দেশ, জাতি ও সমাজ পরিবর্তনে জন্য এগিয়ে আসতে হবে।  

অনুষ্ঠানের ২য় পর্বে কাউন্সিল অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। এতে উপস্থিত সকলের সম্মতিক্রমে লেলিন চাকমাকে সভাপতি, সাধন মণি চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক ও সুখময় চাকমাকে সাংগঠনিক সম্পাদক নির্বাচিত করে ১৭ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরী সদস্য সহ ৪৩ সদস্য বিশিষ্ট নতুন কমিটি গঠিত হয়। নতুন কমিটি ঘোষণা ও শপথ বাক্য পাঠ করান খাগড়াছড়ি জেলা শাখার অর্থ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা।
—————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.