মহালছড়িতে সেনা সদস্য কর্তৃক তিন পাহাড়ি স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টার অভিযোগ

0
2

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম
খাগড়াছড়ির মহালছড়ির উপজেলাধীন ৩নং কিয়াংঘাট ইউনিয়নের উল্টাছড়ি সেনা ক্যাম্পের কয়েকজন সেনা সদস্য তিন পাহাড়ি স্কুল ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছেগত ১৪ অক্টোবর রবিবার এ ঘটনা ঘটে। 
বিলম্বে পাওয়া খবরে জানা যায়, ঘটনার দিন সকালে করল্যাছড়ি ভিতর পাড়া থেকে ৬ষ্ঠ, ৭ম, ৮ম, ৯ম ও ১০ম শ্রেণীতে পড়ুয়া ৬ জন স্কুল ছাত্রী উল্টাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ে ক্লাশ করতে যাচ্ছিলযাবার পথে উক্ত সেনা ক্যাম্পের কয়েকজন সেনা সদস্য তাদের পথরোধ করে এবং নবম ও দশম শ্রেণীতে পড়ুয়া তিন জন ছাত্রীকে হাত ধরে টানাটানি করে শ্লীলতাহানির চেষ্টা চালায়পরে কোন রকমে পালিয়ে গিয়ে তারা ইজ্জত রক্ষা করতে সক্ষম হয়এ সময় অপর ছাত্রীরাও দৌঁড়ে পালিয়ে গিয়ে নিজেদের রক্ষা করেছাত্রীরা লোক লজ্জার ভয়ে প্রথমে এ ঘটনাটি কাউকে না জানিয়ে গোপন রাখেপরে তারা ঘটনাটি তাদের অভিভাবকগণকে জানালে এটি প্রকাশ পায়
এ ঘটনার প্রতিবাদে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম আজ ১৭ অক্টোবর বুধবার দুপুর ১টায় মহালছড়িতে বিক্ষোভ মিছিল বের করেমিছিলটি মহালছড়ি কলেজ মাঠ থেকে শুরু হয়ে উপজেলা পরিষদের সামনে গিয়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করেগণতান্ত্রিক যুব ফোরামের মহালছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি ঊষাময় খীসা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাধারণ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমা এতে বক্তব্য রাখেন
তারা অবিলম্বে ছাত্রীদের শ্লীলতাহানির চেষ্টার সাথে জড়িত সেনা সদস্যদের গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি ও ক্যাম্প সরিয়ে নেয়ার দাবি জানান
এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর মহালছড়ি জোন কমান্ডার লেঃ কর্নেল শহীদুল ইসলাম(বীর-৮) উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: শাহেদ, উপজেলা চেয়ারম্যান সোনারতন চাকমা ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান কাকলী খীসাকে সাথে নিয়ে আজ বুধবার দুপুর ১২টার দিকে উল্টাছড়ি ক্যাম্পে যানসেখানে গিয়ে তিনি শ্লীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগকারী তিনজন ছাত্রী, উল্টাছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষক ও ছাত্রীদের অভিভাবকসহ এলাকার কয়েকজন মুরুব্বীকে ক্যাম্পে ডাকেনএ সময় তিনি শিক্ষক ও ছাত্রীদের কাছ থেকে ঘটনা বিষয়ে জানতে চানতাদের বক্তব্য শোনার পর তিনি ঘটনাটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেন এবং এটি ভিত্তিহীন অভিযোগ বলেও মন্তব্য করেন
বিগত ২০০৮ সালে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে করল্যাছড়ি সারণাথ অরণ্য কুটিরের পাশে উক্ত সেনা ক্যাম্পটি স্থাপন করা হয়সেখান থেকে গত ১২ অক্টোবর ক্যাম্পটি সরিয়ে নিয়ে অরণ্য কুটির থেকে আনুমানিক ৪ কিলোমিটার উত্তরে উল্টাছড়িতে স্থানান্তর করা হয়েছেবর্তমানে সেখানে নতুনভাবে ক্যাম্প তৈরির কাজ চলছেছাত্রীদের শ্লীলতাহানির চেষ্টার ঘটনায় জড়িত সেনা সদস্যরা ঐদিন ক্যাম্প নির্মাণের জন্য রাস্তা থেকে ইট বহনের কাজ করছিলেন বলে জানা গেছেমেজর আযম ও লেঃ মশিউর বর্তমানে এ ক্যাম্পে দায়িত্বে রয়েছেন বলে সূত্র জানিয়েছে

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.