মাটিরাঙ্গায় ধর্ষণের শিকার এক পাহাড়ি নারীর আত্মহত্যা: প্রতিবাদে পিসিপি’র বিক্ষোভ সমাবেশ

0
0
খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি
সিএইচটিনিউজ.কম
মাটিরাঙ্গা :  মাটিরাঙ্গা উপজেলা সদরে সেটলার বাঙালি মো: হাফিজুর ইসলাম রিপন (২৬) কর্তৃক ধর্ষণের শিকার হয়ে নমিতা ত্রিপুরা নামে এক পাহাড়ি নারীর আত্মহত্যার ঘটনার প্রতিবাদে ইউপিডিএফ সমর্থিত বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি) আজ শনিবার বিকালে মাটিরাঙ্গা সদরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে।পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতা-কর্মী ও সমর্থকরা মারমা উন্নয়ন সংসদের সামনে থেকে বেলা ২টায় একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। ফলে সেখানে এক প্রতিবাদ সমাবেশ করে তারা।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের মাটিরাঙ্গা উপজেলা শাখার সভাপতি শান্তিময় চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন ত্রিপুরা স্টুডেন্ট ফোরামের মাটিরাঙ্গা ডিগ্রী কলেজ শাখার সভাপতি বরুণ ত্রিপুরা ও জেএসএস এমএন লারমা সমর্থিত পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ সাধারণ সম্পাদক সোহেল ত্রিপুরা। পিসিপি’র মাটিরাঙ্গা উপজেলা শাখার অর্থ সম্পাদক অমল বিকাশ ত্রিপুরা সমাবেশ পরিচালনা করেন।

বক্তারা আরো বলেন. মাটিরাঙ্গা এলাকায় সেটলার কর্র্তৃক পাহাড়ি নারী নির্যাতনের ঘটনা যেন নিত্য নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। প্রতিনিয়ত এ ধরনের ঘটনা ঘটলেও প্রশাসন অপরাধীদের বিরদ্ধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করছে না। যার ফলে অপরাধীরা উৎসাহী হয়ে এসব ঘটনা সংঘটিত করছে।

বক্তারা প্রশাসন কর্তৃক মিছিলে বাধা দেয়ার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, মিছিল-মিটিঙ ও সভা-সমাবেশ করা একটি গণতান্ত্রিক অধিকার। প্রশাসন কোন কারণ ছাড়াই মিছিলে বাধা দিয়ে গণতান্ত্রিক অধিকারের উপর নগ্নভাবে হস্তক্ষেপ করেছে।

বক্তারা নারী নির্যাতনসহ সকল ধরনের নিপীড়নের বিরম্নদ্ধে সোচ্চার হওয়ার জন্য ছাত্র সমাজ, নারী সমাজ সহ এলাকার সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

বক্তারা নমিতা ত্রিপুরার আত্মহত্যা ও তাকে ধর্ষণের দায়ে হাফিজুর ইসলাম রিপনের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।
উল্লেখ্য, গতকাল শুক্রবার রাতে মাটিরাঙ্গা পৌরসভার ৬নং ওয়ার্ডের মাতব্বর পাড়ার বাসিন্দা জয়নাল আবেদীনের ছেলে হাফিজুর ইসলাম রিপন (২৬) মাটিরাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মিলনকান্ত ত্রিপুরার বাড়িতে গিয়ে চুপিসারে তার গৃহ শ্রমিক নমিতা ত্রিপুরার রম্নমে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করে। এ সময় নমিতা ত্রিপুরার চিকারে মিলন কান্তি ত্রিপুরা ও তার স্ত্রী ঘুম থেকে জেগে নমিতা ত্রিপুরার রুমে গেলে হাফিজুর ইসলাম পালানোর চেষ্টাকালে তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলতে সক্ষম হন। এ ঘটনার অপমান সইতে না পেরে নমিতা ত্রিপুরা রম্নমে ঢুকে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।
 

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.