মানিকছড়িতে গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি সেনাবাহিনীর!

1
2

সিএইচটিনিউজ.কম
Manikchariমানিকছড়ি প্রতিনিধি: খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার বাটনাতলী ইউনিয়নের তবলাপাড়ায় মো: নুরুল হক নামে ভূমি বেদখলকারী এক সেটলারের বসতবাড়ি ভেঙে দেওয়ার অজুহাতে সিন্দুকছড়ি জোনের একদল সেনা গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় পাহাড়ি গ্রামবাসীরা অভিযোগ করে জানান, আজ ২ ডিসেম্বর মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে সিন্দুকছড়ি জোনের জনৈক মেজরের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের একদল সেনা সদস্য তবলা পাড়ায় যায়। সেখানে গিয়ে তারা নুরুল হকের বাড়িটা কারা ভেঙে দিয়েছে তা গ্রামের দোকানদার ও স্থানীয় মহিলা মেম্বার-এর কাছ থেকে জানতে চায়। এ সময় তারা সেনাদেরকে বলেন, আপনারাতো সারারাত এলাকায় টহল দিয়েছেন। বাড়িটি কারা ভেঙে দিয়েছে তাতো আপনারাই ভালো বলতে পারবেন। এরপর সেনারা নুরুল হকের বাড়িটি যারা ভেঙে দিয়েছে তাদের খুঁজে বের করে দেয়ার নির্দেশ দেন। অন্যথায় গ্রাম জ্বালিয়ে দেওয়া হবে বলে হুমকি দেন। সেনাবাহিনীর এহেন হুমকির কারণে এলাকায় আতঙ্ক ও ক্ষোভ দেখা দিয়েছে।

এদিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মো: নুরুল হক বিগত ২০০৫ সালে ভুয়া কবলিত দেখিয়ে তবলা পাড়ার বাসিন্দা গংজ মারমার রেকর্ডীয় ও ভোগদখলীয় ৫ একর জায়গার উপর বসতি স্থাপন করে। এমতাবস্থায় ২০১২ সালে আদালতের রায় মোতাবেক স্থানীয় মানিকছড়ি থানা থেকে নুরুল হককে উক্ত জায়গা হতে উঠে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু নুরুল হক ঐ নির্দেশ তোয়াক্কা না করে সেখানে বসবাস করতে থাকে এবং গংজ মারমার জায়গাটি বেদখল করতে শুরু করে। গত রবিবার উক্ত জায়গা হতে নুরুল হক গাছ কেটে নিয়ে যেতে চাইলে জায়গার মালিক গংজ মারমা ও গ্রামবাসীরা তাতে বাধা দিতে গেলে নুরুল হক গংরা নিথোয়াইঅং মারমাকে কুপিয়ে আহত করে। এ ঘটনার জের ধরে নুরুল হক নিজেই তার বসতবাড়ি ভেঙে ফেলে সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা বাঁধানোর ষড়যন্ত্র করছে বলে স্থানীয় গ্রামবাসীরা জানিয়েছেন।
————-

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.