মানিকছড়িতে বোরকা পার্টির সন্ত্রাসী কর্তৃক গ্রামপ্রধান সহ ৩ জনকে মারধর

0
2

সিএইচটিনিউজ.কম
Manikchariমানিকছড়ি(খাগড়াছড়ি) : খাগড়াছড়ির মানিকছড়ি উপজেলার তিনটহরী ইউনিয়নের ডেবাতলী গ্রামে সেনাবাহিনী ও জেএসএস (সন্তু) মদদপুষ্ট বোরকা পার্টির সন্ত্রাসীরা গ্রাম প্রধান(কার্বারী)সহ ৩ জনকে মারধর করেছে। এর মধ্যে একজন নারীও রয়েছেন। গতকাল শনিবার(১৮ অক্টোবর) রাতে এ ঘটনা ঘটে।

যারা মারধরের শিকার হয়েছেন তারা হলেন- ডেবাতলী গ্রামের কার্বারী কংহ্লাঅং মারমা (৫২), পিতা মংশি মারমা, ধুংক্যজাই মারমা (২০) পিতা- কংঞোরি মারমা ও নিঞোমা মারমা (২৫) স্বামী- ম্রাসাউ মারমা।

জানা যায়, শনিবার রাত আনুমানিক ১১:৪০টার সময় মায়াধন চাকমা ও নকুল ত্রিপুরার নেতৃত্বে বোরকা পার্টির ৬ জনের একটি সশস্ত্র দল ডেবাতলী গ্রামে হানা দেয়। এ সময় তারা পানি খাওয়ার কথা বলে গ্রামের কার্বারী কংহ্লাঅং মারমাকে ঘুম থেকে ডেকে তুলে তাদের সাথে নিয়ে যায়। একই সময় সন্ত্রাসীরা ধুংক্যজাই মারমাকেও নিয়ে যায়। অপরদিকে সন্ত্রাসীরা ম্রাসাউ মারমার বাড়িতে গিয়ে তাকে না পেয়ে তার স্ত্রী নিঞোমা মারমাকে লাথি মেরে আঘাত করে।

সন্ত্রাসীরা কার্বারী কংহ্লাঅং মারমা ও ধুংক্যজাই মারমাকে ডেবাতলী ও কুমারি গ্রামের মাঝ রাস্তায় নিয়ে গিয়ে বেদম মারধর করে সেখানে ফেলে রেখে যায়। পরে সেখান থেকে ধুংক্যজাই মারমা কোনরকম ফিরে এসে ঘটনাটি গ্রামবাসীকে জানায়। এরপর  গ্রামবাসীরা ঘটনাস্থলে গিয়ে কার্বারী কংহ্লাঅং মারমাকে মারাত্মক আহত অবস্থায় উদ্ধার করে। সন্ত্রাসীদের বেদম মারধরের কারণে তিনি উঠাবসা করতে ও কথা বলতে পারছেন না।

আজ রবিবার(১৯ অক্টোবর) সকালে কার্বারী কংহ্লাঅং মারমাকে আহত অবস্থায় মানিকছড়ি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
———–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.