মানিকছড়িতে শহীদ মংশে মারমার ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত

0
0

মানিকছড়ি (খাগড়াছড়ি) : স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ ও স্মরণ সভার মধ্যে দিয়ে খাগড়াছড়ির মানিকছড়িতে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)-এর সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা শহীদ মংশে মারমার ১৮তম মৃত্যুবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

রবিবার (৩ ডিসেম্বর ২০১৭) সকাল সাড়ে ৬টায় শহীদ মংশে মারমার স্মরণে স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। এতে সুইথুই মারমার সঞ্চালনায় ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)পক্ষে ইউপিডিএফ সদস্য আপ্রুসি মারমা, রয়েল মারমা, পিসিপি, এইচডব্লিউএফ ও ডিওয়াইএফ পক্ষ থেকে পিসিপি খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা, এইচডব্লিউএফ খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রেশমি মারমা, ডিওয়াইএফ মানিকছড়ি উপজেলা শাখার সদস্য রুমেন চাকমা এবং শহীদ পরিবার ও এলাকাবাসী পক্ষ থেকে শহীদ মংশে মারমার পিতা কংজরী মারমা ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিগণ স্মৃতিস্তম্ভে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।

পুষ্পস্তবক অর্পণ শেষে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন, ইউপিডিএফ সদস্য আপ্রুসি মারমা ও পিসিপি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা।

বক্তারা, শহীদ মংশে মারমার আদর্শ-চেতনা লালন করে জাতির অধিকার আদায়ের লক্ষে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন জোরদার করতে পার্বত্য চট্টগ্রামের ছাত্র-যুব-নারী সমাজসহ সর্বত্র জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

পরে দুপুর ২টায় ‘বীর শহীদের রক্তের বীজ থেকে জন্ম নেবে হাজারো বিপ্লবী, সরকার-রাষ্ট্রীয় বাহিনী ভাগ করে শাসন করার নীতির ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হোন” এই স্লোগানে এক স্মরণ সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় সুইথুই মারমা সঞ্চালনায় ও পিসিপি থানা শাখার সভাপতি উথোয়াইপ্রু মারমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ’র লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সংগঠক আপ্রুসি মারমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রেশমি মারমা, আমতলি গ্রামের কার্বারী অংগ্য মারমা, হাফছড়ি ইউপি’র সাবেক মহিলা মেম্বার অংক্রা মারমা, পিসিপির খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক অমল ত্রিপুরা ও ইউপিডিএফ’র মানিকছড়ি এলাকার সংগঠক চিংনু মারমা।

বক্তারা  বলেন, শহীদ মংশে মারমা মানিকছড়ি এলাকায় একজন প্রতিবাদী কণ্ঠ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। তিনি শাসকগোষ্ঠীর অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে সর্বদা সোচ্চার ছিলেন। তার এই প্রতিবাদী কণ্ঠকে রুদ্ধ করে দিতেই শাসকগোষ্ঠী জেএসএস সমর্থনপুষ্ট কতিপয় দুর্বৃত্তকে দিয়ে ১৯৯৯ সালের আজকের এই দিনে মংশে মারমাকে নির্মমভাবে খুন করে।

বক্তারা আরো বলেন, শাসকচক্রের ষড়যন্ত্রের কোন শেষ নেই। প্রতিনিয়ত অন্যায় ধরপাকড়সহ জনগণের উপর নানা অত্যাচার নিপীড়ন চলছে। এক সময় মানিকছড়ি ও লক্ষ্মীছড়িতে বোরকা পার্টি সৃষ্টি করে এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করা হয়েছে। অতি সম্প্রতি খাগড়াছড়িতে একই রূপে কতিপয় দলচ্যুত ও মাদকসেবীদের দিয়ে নব্য মুখোশ বাহিনী সৃষ্টি করে ইউপিডিএফ’র নেতৃত্বে চলমান ন্যায়সঙ্গত আন্দোলনকে বাধাগ্রস্ত করার অপচেষ্টা চলছে।

বক্তারা শাসকগোষ্ঠির সকল ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করতে প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য ছাত্র-যুবক-নারীসহ সর্বস্তরের জনগণের প্রতি আহ্বান জানান।

স্মরণসভা থেকে বক্তারা শহীদ মংশে মারমার খুনীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.