মিঠুন চাকমা খুনীদের গ্রেফতার ও বিচারে দাবিতে দীঘিনালায় বিক্ষোভ

0
1

দীঘিনালা : মিঠুন চাকমা’র খুনীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে ইউপিডিএফ-এর ঘোষিত খাগড়াছড়ির ৮টি উপজেলা সদরে বিক্ষোভ কর্মসূচির অংশ হিসেবে আজ মঙ্গলবার (৯ জানুয়ারি) দীঘিনালায় বিক্ষোভ মিছিল অনুষ্ঠিত হয়েছে।

” পার্বত্য চট্টগ্রামে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস ও পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বন্ধ কর” এই শ্লোগানে হত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন দীঘিনালা উপজেলা শাখার উদ্যোগে এই বিক্ষোভ অনুষ্ঠিত হয়।

দীঘিনালা সদর থানা বাজার থেকে সকাল ১১টায় বিক্ষোভ মিছিল শুরু হয়ে দীঘিনালা সিনেমা হল দোকানের সামনে এসে সংক্ষিপ্ত সমাবেশ মাধ্যমে শেষ হয়।

সমাবেশে পিসিপি দীঘিনালা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জীবন চাকমার সঞ্চালনায় ও সভাপতি নিকেল চাকমার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের দীঘিনালা উপজেলা সভাপতি সজীব চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশন খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সহ-সাধারণ সম্পাদক অবনিকা চাকমা প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তরা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের দমনমূলক ১১ দফা নির্দেশনা জারি করার পর শাসক গোষ্ঠী পরিকল্পিতভাবে একের পর এক হত্যাকাণ্ড ঘটাচ্ছে। গত বছর ছাত্র নেতা রমেল চাকমাকে সেনাবাহিনী কর্তৃক নির্যাতন চালিয়ে হত্যা করা হয়। তারই ধারাবাহিকতায় গত ৩ জানুয়ারি প্রকাশ্যে দিবালোকে নব্য মুখোশ বাহিনীর সন্ত্রাসীদের লেলিয়ে দিয়ে খাগড়াছড়ি শহরে ইউপিডিএফ সংগঠক মিঠুন চাকমাকে তুলে নিয়ে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে।

তারা অভিয়োগ করে আরো বলেন, গত ৫ জানুয়ারি মিঠুন চাকমা দাহক্রিয়া অনুষ্ঠানে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে তিন পার্বত্য জেলাসহ সারাদেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে লোকজন আসার পথে জেলা বিভিন্ন স্থানে সেনাবাহিনী-বিজিবি ও প্রশাসন বাধা দিয়েছে। যা এদেশের সরকার ও প্রশাসনের অগণতান্ত্রিক ও অসাংবিধানিক আচরণ ছাড়া আর কিছুই নয়।

বক্তারা, সরকারের দমননীতি বিরুদ্ধে এবং সেনা সৃষ্ট নব্য মুখোশ বাহিনীর সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে সোচ্চার হওয়ার জন্য জনগণের আহ্বান জানান।

তারা পার্বত্য চট্টগ্রামে রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস ও পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বন্ধসহ অবিলম্বে ইউপিডিএফ সংগঠক মিঠুন চাকমা খুনীদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করেন।
——————–
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.