ম্রোদের জমি দখল করার লক্ষ্যে সেনা পরিচালনায় মঞ্চস্থ হলো ‘মানববন্ধন’ নাটক!

0
138

সুই অং, বান্দরবান ।। বান্দরবানের চিম্বুক পাহাড়ে ম্রো জনগোষ্ঠীর ভূমি জবদখল করার জন্য সেনাবাহিনীকে ‘মানববন্ধন’ নামক একটি নাটক মঞ্চস্থ করতে হলো। আলীকদম থেকে কিছু পাহাড়িকে জোর করে এবং টাকা-চাল দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে বান্দরবান সদরের প্রেসক্লাবের সামনে নিয়ে এসে আজ ১৭ নভেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার সকালে তারা এই মানববন্ধন নাটকটি মঞ্চস্থ করে। এ সময় নিয়ে আসা লোকজনের হাতে ধরিয়ে দেওয়া হয় একটি ডিজিটাল ব্যানার ও কিছু ডিজিটাল প্ল্যাকার্ড।  ব্যানারে লেখা রয়েছে, ‘সেনাবাহিনী এবং ম্রো সম্পর্কের অপর নাম সহযোগিতার সেতু বন্ধন’, পার্বত্য এলাকায় উন্নয়ন ও সম্প্রীতির বন্ধনে সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করি”

বান্দরবান ম্রো সম্প্রদায়ের নামে নাটকটি চালিয়ে দেওয়া হলেও কারা এই নাটকটির স্ক্রিপ্ট রচনাকারী ও পরিচালনাকারী ব্যানারের ভাষাটিই সেটা স্পষ্ট বলে দেয়। নাটক রচনাকারীরা নিজেদের যতই চালাক-চতুর ভাবুক না কেন ব্যানারটির মাধ্যমেই তারা জনগণের কাছে হাতেনাতে ধরা পড়ে গেছে।

কাজী মুজিবুর রহমান (গোল চিহ্নিত) সহ সেটলারদের সংগঠন পার্বত্য নাগরিক পরিষদের নেতৃবৃন্দকে দেখা যাচ্ছে। ছবিটি সংগৃহিত

নাটকটিতে ভিলেনের ভূমিকায় হাজির ছিলেন বান্দরবান জেলা আওয়ামী লীগের বহিস্কৃত নেতা কাজী মুজিবুর রহমান। যিনি এখন সেটলারদের সংগঠন পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক পরিষদের কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান। এছাড়া এই সংগঠনটির আরো অনেক লোকও নাটকটির মঞ্চায়নে ছিলেন। পার্বত্য চট্টগ্রামে সাম্প্রদায়িকতার বিষবাষ্প ছড়ানোর পেছনে রয়েছে এই সংগঠনটির বিশেষ ভূমিকা। ফলে নাটকটি একেবারে ফালতু নাটক হিসেবে ম্রো জনগোষ্ঠীসহ দেশের জনগণের কাছে পরিচিতি পেতে দেরী হয়নি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এখন নাটকটি নিয়ে ট্রল চলছে।

সেনাবাহিনীকে এই নাটকটি করতে হলো এই কারণে যে, চিম্বুক পাহাড়ের ম্রোরা জেগে উঠেছে। তারা আর তাদের ভূমি জরবদখল হতে দেবে না। এ নিয়ে তারা প্রধানমন্ত্রীকে স্মারকলিপি দিয়েছেন, কালচারাল শো-ডাউনের মাধ্যমে প্রতিবাদ সমাবেশ করেছেনশুধু তাই নয়, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারা দেশের মানুষ এখন ম্রোদের পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাদের ভূমি রক্ষার জন্য সোচ্চার হয়েছেন, আন্দোলন করছেন।

যার কারণে সেনাবাহিনী মনে করছে যে তাদের স্বার্থ ক্ষুন্ন হওয়ার উপক্রম হয়েছে। তাই উপায়ান্তর না পেয়ে তারা এই প্রহসনমূলক নাটকটি মঞ্চস্থ করতে বাধ্য হয়েছে।

নাটকটি মঞ্চস্থ করতে গিয়ে তারা বিভিন্নভাবে চিম্বুক পাহাড়ের আন্দোলনকারী ম্রো জনগণকে হুমকি-ধমকি ও ভয়ভীতি দেখিয়েছেন এবং এখনো দেখাচ্ছেন।

গতকাল আলীকদমে ম্রো সহ সাধারন পাহাড়ি ছাত্র-জনতা চিম্বুক পাহাড়ে ভূমি দখলের প্রতিবাদে সমাবেশ করতে চাইলে সেনাবাহিনী সেখানে সরাসরি বাধা দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। সেনাবাহিনী তাতেই ক্ষান্ত হয়নি, গতকাল থেকে তারা আলীকদমসহ বিভিন্ন স্থানে বেনামি একটি লিফলেটও বিলি করেছে। মূলত সেই লিফলেটটিই ছিল আজকের মানববন্ধন নাটকের স্ক্রিপ্টটা।

মনে রাখতে হবে চিম্বুক পাহাড় বেদখল হওয়া মানেই শত শত বছরের ভিটেমাটি থেকে ম্রোদের চিরতরে উচ্ছেদ হওয়া। ভূমি হারানো মানেই একটি জাতির সব শেষ হয়ে যাওয়া। কাজেই যে কোন উপায়েই চিম্বুক পাহাড়কে রক্ষা করতে হবে। উচ্ছেদ থেকে ম্রো জনগোষ্ঠীকে বাঁচাতে হবে। তাই দেশের জনগণকে মুনাফালোভী ভূমি দখলদারিত্বের বিরুদ্ধে আরো বেশি সোচ্চার হতে হবে এবং রুখে দাঁড়াতে হবে।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত/প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.