রাংগামাটিতে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় এবং মেডিকেল কলেজ স্থাপন স্থগিতের দাবিতে ঢাকায় পিসিপির বিক্ষোভ সমাবেশ

0
2

সিএইচটিনিউজ.কম
ঢাকা: “যে উন্নয়ন পাহাড়িদের উচ্ছেদ করে সে উন্নয়ন আমরা চাই না” এই স্লোগানকে সামনে রেখে এবং ‘পাহাড়ে ব্যাব মোতায়েন, সেনা বিজিবি ক্যাম্প স্থাপন সহ সকল প্রকার ভূমি বেদখলের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলুন’ এই আহ্বানে রাংগামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যাল কলেজ স্থাপনের কার্যক্রম স্থগিতের দাবিতে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ পিসিপি ঢাকা শাখা গতকাল ২০ জুন শুক্রবার বিকালে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

পিসিপি ঢাকা শাখার সভাপতি ত্রিশঙ্কু চাকমার সভাপতিত্বে ও সাধারন সম্পাদক বিনয়ন চাকমার পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, পিসিপির কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক বিলাস চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি মাইকেল চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি নিরুপা চাকমা এবং সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন ছাত্র গণমঞ্চের সদস্য সচিব শওকত জামিল।

বক্তারা বলেন, রাংগামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন করা হলে স্থানীয় পাহাড়িরা ভূমি থেকে উচ্ছেদের শিকার হবেন। পার্বত্য চট্টগ্রামে বিভিন্ন উন্নয়নের নামে ভূমি থেকে পাহাড়িদের উচ্ছেদ করা হয়েছে উল্লেখ করে নেতৃবৃন্দ বলেন, কাপ্তাই বাঁধ, রেয়ন মিল ও চন্দ্রঘোনার পেপার মিল স্থাপন হওয়ার কারণে হাজার হাজার পাহাড়ি উচ্ছেদের শিকার হয়েছেন।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ রাংগামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্ত বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যাল কলেজকে সরকারের একটি নব্য সেটলার পুনর্বাসন প্রকল্প হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, এ প্রকল্পের মধ্য দিয়ে নতুন করে সেটলার পুনর্বাসন করা এবং স্বার্থান্বেষী মহল এতে ফায়দা লুটবে। এতে সেটলার ও স্বার্থান্বেষী মহলের লাভবান হলেও পাহাড়িরা কিছুই পাবে না, বরং ক্ষতি ও উচ্ছেদের শিকার হবে।

বক্তারা আরো বলেন যে, পার্বত্য চট্টগ্রামে প্রাথমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা ব্যবস্থার উন্নতি না ঘটিয়ে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো স্থাপন করা হলে পাহাড়ি শিক্ষার্থীরা বৈষম্যের শিকার হবেন। বক্তরা দাবি জানিয়ে বলেন, অবিলম্বে রাংগামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন কার্যক্রম স্থগিত করতে হবে। এছাড়া তাঁরা পার্বত্য চট্টগ্রামে রাজনৈতিক সমাধান না হওয়ার আগে বিশ্ববিদ্যালয় ও মেডিক্যাল কলেজ স্থাপন না করার জন্য জোর দাবি জানান।

সমাবেশ থেকে বক্তারা উন্নয়নের নামে এবং সেনা বিজিবি ও সেটলারদের দিয়ে ভূমি বেদখলকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। নেতৃবৃন্দ দীঘিনালায় বিজিবির ৫১ ব্যাটালিয়নের সদর দপ্তর স্থাপনের নামে ভূমি বেদখলকে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং তা বন্ধের দাবি জানান।

সমাবেশ শেষে একটি মিছিল হয়। মিছিলটি প্রেসক্লাব থেকে শুরু হয়ে পল্টন মোড় ঘুরে আবার প্রেসক্লাবের সামনে এসে শেষ হয়।
—————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.