রাঙামাটিতে ইউপিডিএফ সংগঠককে হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে যুব ফোরাম ও পিসিপির বিক্ষোভ

0
1

 চট্টগ্রাম : রাঙামাটির বন্দুকভাঙা ইউনিয়নে সেনা-সৃষ্ট নব্য মুখোশবাহিনী কর্তৃক ইউপিডিএফ’র স্থানীয় সংগঠক অনল বিকাশ (লক্ষী)-কে গুলি করে হত্যার প্রতিবাদে চট্টগ্রামে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ইউপিডিএফের সহযোগী সংগঠন গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)।

আজ রবিবার (১৭ ডিসেম্বর ২০১৭) বিকাল ৪ টায় নগরীর ডিসি হিল থেকে মিছিলটি শুরু হয়ে গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে চেরাগী মোড়ে এসে সমাবেশের মধ্য দিয়ে শেষ হয়। 

গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নগর শাখার সহ-সভাপতি শুভ চাকের সভাপতিত্বে উক্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, সংগঠনটির নগর শাখার সাধারণ সম্পাদক সুকৃতি চাকমা, পিসিপি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সুনয়ন চাকমা, চ.বি শাখার সহ-অর্থ সম্পাদক মিঠন চাকমা। সঞ্চালনা করেন ছাত্র নেতা ক্লিনটন চাকমা।

সমাবেশে বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, ইউপিডিএফের চলমান গণতান্ত্রিক আন্দোলনকে স্তব্ধ করতে এবং পার্বত্য চট্টগ্রামকে একটি মুসলিম অধ্যুষিত অঞ্চল হিসেবে প্রতিষ্ঠার নীল-নক্সার অংশ হিসেবে সেনাবাহিনীর পাকিস্তানী ভাবাদর্শ অংশটিই সমাজ থেকে বিচ্যুত কতিপয় দুস্কৃতি ব্যক্তিকে দিয়ে নব্য মুখোশবাহিনী সৃষ্টি করে অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য লড়াইরত ইউপিডিএফের বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিয়েছে। এরই অংশ হিসেবে সেনা-প্রশাসনের প্রত্যক্ষ সহায়তায় নব্য মুখোশবাহিনীর সন্ত্রাসীরা ইউপিডিএফের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের হত্যা করে চলেছে । তারই ধারাবাহিকতায় মুখোশবাহিনী সন্ত্রাসীরা গত ১৬ই ডিসেম্বর বিজয় দিবসে প্রথম প্রহরে ইউপিডিএফে’র বন্দুকভাঙা এলাকার সংগঠক অনল বিকাশ চাকমা লক্ষী-কে গুলি করে হত্যা করেছে।

পাহাড়ে বিরাজমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতির জন্য পাকিস্থানী ভাবাদর্শে বিশ্বাসী সেনাবাহিনীর অংশটিকে দায়ী করে বক্তারা আরো বলেন, অতীত থেকে শুরু করে পাহাড়ে এযাবৎ যতগুলো সেনাবাহিনী কর্তৃক মানবাধিকার লংঘনের ঘটনা ঘটেছে তার একটিরও সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার হয়নি। অথচ বর্তমানে মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষে দাবিদাররাই ক্ষমতাসীন।

তারা বলেন, নানিয়াচরে ছাত্র নেতা রমেল চাকমা হত্যার সাথে স্থানীয় জোন কমান্ডার লেঃ কঃ বাহালুল আলমের জড়িত থাকার বিষয়টি বিভিন্নভাবে প্রমাণিত হওয়া সত্বেও তাকে শাস্তি দেয়া তো দূরের কথা উল্টো ৯৬-এ কল্পনা চাকমার অপহরণকারী লেঃ ফেরদৌসের মত প্রমোশনই হতে চলেছে। এ থেকেও প্রতীয়মান হয় যে, রাষ্ট্র বিশেষতঃ সেনা প্রশাসনই পাহাড়ে সব অনিষ্টের মূল।

বক্তারা পার্বত্য চট্টগ্রামের সমগ্র জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে দলমত নির্বিশেষে সেনা-মুখোশদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর উদাত্ত আহ্বান জানান।

সমাবেশ থেকে তারা অবিলম্বে ইউপিডিএফ সংগঠক অনল বিকাশ চাকমার চিহ্নিত খুনী নব্য মুখোশ বাহিনীর সর্দার তপন জ্যোতি চাকমা (বর্মা) ও তার সহযোগীদের গ্রেফতারপূর্বক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড বন্ধের দাবি জানান।
—————
সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.