রাঙামাটিতে সেনা সহায়তায় ২ ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে মারধর, একজনকে ক্যাম্পে হস্তান্তর

0
83

রাঙামাটি ।। রাঙামাটি সদর উপজেলার জীবতলিতে সেনাবাহিনীর প্রত্যক্ষ সহায়তায় সন্ত্রাসীরা দুই ব্যক্তিকে ধরে নিয়ে মারধর ও একজনকে সেনাক্যাম্পে হস্তান্তর করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার (১ অক্টোবর) এ ঘটনাটি ঘটে বলে জানা যায়।

যাদেরকে ধরে নিয়ে মারধর করা হয় তারা হলেন- সোনা ধন চাকমা (৪০), পিতা- কার্তিক চন্দ্র চাকমা ও লাইছি মং মারমা (৩৮), পিতা-টিউ মহাজন মারমা।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায় , বহস্পতিবার দুপুর ১:০০ টার দিকে জীবতলির গবঘোনা সেনা ক্যাম্পের একদল সেনা সদস্য এবং খোকন চাকমা ও বীরলক্ষ চাকমার নেতৃত্বে একদল সন্তাসী যৌথভাবে পার্শ্ববর্তী বাকছড়ি, ধুল্যাছড়ি ব্রিজ, গুড়াছড়ি, হরিণছড়া, অংছিলা কার্বারী পাড়া ইত্যাদি গ্রামে তল্লাসী চালায়।

এ সময় সন্ত্রাসীরা সেনাদের সহযোগিতা নিয়ে সোনাধন চাকমাকে হরিণছড়া গ্রামের তার নিজের চা দোকান থেকে এবং লাইছি মং মারমাকে অংছিলা কার্বারী পাড়ার তার নিজের বাড়ি থেকে ধরে নিয়ে জীবতলিতে তাদের আস্তানায় নিয়ে যায়।

সেখানে নেয়ার পর সন্ত্রাসীরা তাদেরকে বেদম মারধর করে। পরে বিকেল ৫ টার দিকে সন্ত্রাসীরা সোনাধন চাকমাকে ছেড়ে দিলেও লাইছি মং মারমাকে জীবতলি সেনা ক্যাম্পে হস্তান্তর করে।

লাইছি মং মারমা জনসংহতি সমিতির অংছিলা কার্বারী পাড়ার গ্রাম কমিটির সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন বলে জানা গেছে।

পরে স্থানীয় স্থায়ী বাঙালি অধিবাসী মোঃ জহির আহমেদকে সঙ্গে নিয়ে অংছিলা গ্রামের কয়েকজন মুরুব্বী জীবতলি সেনা ক্যাম্পে গিয়ে লাইছি মং মারমাকে ছাড়িয়ে নিয়ে আসেন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা যায়।


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.