রাঙামাটি জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ‘নান্যাচর গণহত্যা’ দিবস পালিত

0
2

রাঙ্গামাটি : “শহীদের রক্ত বীজ থেকে জন্ম নেবে হাজারো সংগ্রামী!” শ্লোগানে ১৯৯৩ সালে রাঙ্গামাটির নান্যাচরে সেনা-সেটলার কর্তৃক সংঘটিত গণহত্যার ২৫ বছর স্মরণে আজ শনিবার (১৭ নভেম্বর ২০১৮) রাঙ্গামাটির নান্যাচর, কাউখালী এবং সাজেকে শোক ও আলোচনা সভা করেছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি)।

শোকসভায় আলোচনা শুরুর পূর্বে নান্যাচর গণহত্যাসহ এযাবতকাল পার্বত্য চট্টগ্রামে পূর্ণস্বায়ত্বশাসন প্রতিষ্ঠার লড়াই-সংগ্রামে যারা শহীদ হয়েছেন তাদের উদ্দেশ্যে উপস্থিত সকলেই দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করেন।

নান্যাচর উপজেলার রাঙিপাড়ায় সকাল ১০ টায় শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় নান্যাচর সদর ইউনিয়নের ৬নং ইউপি সদস্য রিপেন চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট এর সদস্য গিরী চাকমা, পিসিপি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সভাপতি কুনেন্টু চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নান্যাচর থানা শাখার সভাপতি নিলয় চাকমা এবং ১নং সাবেক্ষ্যয় ইউনিয়নের ৪নং ইউপি সদস্য রিপের চাকমা।

অপরদিকে একই সময় ও দাবিতে কাউখালী এবং সাজেকে শোক সভা ও প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়। কাউখালী সদরে পিসিপি কাউখালী থানা শাখার সাধারণ সম্পাদক রুপক চাকমার সঞ্চালনায় এবং সভাপতি থুইনুমং মারমার সভাপতিত্বে শোকসভায় আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইউপিডিএফ কাউখালী অঞ্চল সংগঠক ডিএস চাকমা, পিসিপি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সহসভাপতি নিকন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের নেতা বিনয় চাকমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক দয়াসোনা চাকমা। আলোচনা শেষে বিকাল ৪ টায় শহীদদের স্মরণে প্রদীপ প্রজ্জ্বলন করা হয়।

সাজেকে পিসিপি সাজেক থানা শাখার সভাপতি রুপায়ন চাকমার সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক নিউটন চাকমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ইউপিডিএফের সাজেক অঞ্চল সংগঠক মানস চাকমা, পিসিপি রাঙ্গামাটি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক আসেন্টু চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরোমের সাজেক থানা শাখার সভাপতি সুমন চাকমা এবং সাজেক যুব কমিটির সভাপতি অরুন জয় চাকমা।

বক্তারা বলেন, ১৯৯৩ সালের আজকের এই দিনে নান্যাচর বাজারে সেনাবাহিনীর প্রত্যক্ষ মদদ ও সহযোগিতায় সেটলাররা দা, বর্শা, বল্লম সহ বিভিন্ন অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে নিরীহ পাহাড়িদের উপর আক্রমণ করে এবং তাদের উপর চালায় এক নির্মম হত্যাযজ্ঞ। সেদিন নান্যাচর বাজারের হাটবার হওয়ায় অন্যান্য দিনের তুলনায় পাহাড়িদের সমাগম ছিল অনেক বেশি। সেনা-সেটলার কর্তৃক সংঘটিত এ নির্মম হত্যাকাণ্ডে প্রায় ৩০ জনের অধিক নিরীহ, সাধারণ লোক শহীদ হন। কিন্তু নান্যাচর গণহত্যার আজ ২৫ বছর অতিবাহিত হলেও অদ্যাবধি এ হত্যাকাণ্ডের জন্য দায়ী কোন সেনা কর্মকর্তা কিংবা সেটলারকে গ্রেপ্তার/সাজা দেয়া হয়নি।

ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তারা আরো বলেন, সরকারের বিচারহীনতা সংস্কৃতি, ফ্যাসিবাদি আচরণ এবং সংখ্যালঘু জাতি ধ্বংসের নীতি প্রনয়ণ থাকায় পার্বত্য চট্টগ্রামে এযাবতকাল সংঘটিত কোন ঘটনারই সুষ্ঠু তদন্ত এবং দোষীদের বিচারের আওতায় এনে শাস্তি প্রদান করা হয়না।

সভা থেকে বক্তারা অবিলম্বে পার্বত্য চট্টগ্রামে সংঘটিত সকল হত্যাকাণ্ডের সুষ্ঠু তদন্তসহ ঘটনার মদদদাতা ও জড়িতদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

________________________

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

 

 

 

 

 

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.