রামগড়ে লংগদুর আর্যগিরি বনবিহারের অধ্যক্ষকে হুমকি ও জমি বেদখলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

0
56

রামগড় প্রতিনিধি।। খাগড়াছড়ির রামগড়ে লংগদুর ডানে আঠারকছড়া আর্যগিরি বনবিহারের অধ্যক্ষকে হুমকি, ভীতি প্রদর্শন, সেটলার বাঙালি কর্তৃক বিহার ও ভূমি বেদখলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শনিবার (১৭ জুলাই ২০২১), দুপুর ১২ টার সময়ে রামগড় উপজেলা বৌদ্ধ ধর্মীয় সম্প্রদায় দায়ক-দায়িকাবৃন্দ এই বিক্ষোভের আয়োজন করেন।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, লংগদুর আঠারকছড়ায় রাষ্ট্রবাহিনী ও তাদের মদদপুষ্ট সন্ত্রাসী কর্তৃক বিহার অধ‍্যক্ষকে হুমকি এবং সেটলার কর্তৃক বিহারের ভূমি ও বিহার বেদখলে রাষ্ট্র বাহিনীর সহযোগিতা পূরো বৌদ্ধ সম্প্রদায়কে উদ্বিগ্ন করেছে। একটি দেশে বসবাসরত বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের উপর রাষ্ট্রীয় বাহিনী এরকম আচরণ করতে পারে না। ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানের ভূমি ও বিহার বেদখলের বিরুদ্ধে বৌদ্ধ সম্প্রদায় চুপচাপ থাকতে পারে না। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

কলেজ ছাত্র অসীম চাকমা বলেন, ইসলাম ভিন্ন অন্য ধর্মাবলম্বীদের রাষ্ট্র যেভাবে নিপীড়ন চালাচ্ছে তা আমরা প্রতিনিয়ত দেখতে পাচ্ছি। ছাত্র সমাজ কিন্তু এসব আর দেখতে চায় না। এর বিরুদ্ধে ছাত্র সমাজ প্রতিরোধ করবেই।

তিনি বলেন, একজন সচেতন ছাত্র হিসেবে দাবি জানাতে চাই- লংগদুতে বিহারের ভূমি বেদখলে জড়িতদের শাস্তি দিতে হবে, পার্বত‍্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে সংখ্যালঘু জাতিসত্তার ভূমি বেদখলের রাষ্ট্রীয় ষড়যন্ত্র বন্ধ করতে হবে এবং পাহাড় হতে সেনাশাসন তুলে নিতে হবে।

এলাকার মুরুব্বী জ‍্যোতিময় চাকমা বলেন- দেশে যদি বৌদ্ধ বিহারের ভূমি সুরক্ষিত না হয় তবে আমাদের ভূমির সুরক্ষার নিশ্চয়তা কোথায়? আমরা রামুর ট্রাজেডি দেখেছি কিন্তু অপরাধীদের বিচার দেখিনি। রাষ্ট্রের এই বিচারহীনতার সংস্কৃতি বারবার অপরাধীদের সাহস দেয়। যদি অপরাধীদের বিচার হতো বারবার এমন ঘটনা ঘটতো না। শুধু বৌদ্ধ বিহারের ভূমি বেদখল নয়, আমাদের ধর্মীয় গুরুদেরও নিরাপত্তা নেই। সেটলার দ্বারা বৌদ্ধ ভিক্ষুদেরও (ধর্মীয় গুরু) হয়রানি, জখম ও নিপীড়ন এমনকি হত‍্যার চিত্রও এ পার্বত‍্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে দেখেছি। তাই আমরা বারবার যাতে এমন ঘটনা না ঘটে দোষীদের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানাই।

বিক্ষোভ সমাবেশ থেকে ১.পার্বত‍্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে সংখ‍্যালঘু জাতিসত্তাদের ভূমির নিশ্চয়তা বিধান করা, ২. সেনা ও সেটলার কর্তৃক বেদখলকৃত ভূমি ফিরিয়ে দেয়া, ৩.পার্বত‍্য চট্টগ্রাম হতে সেনাক‍্যাম্প প্রত‍্যাহার করা, ৪.আর্য‍্যগিরি বনবিহারের অধ‍্যক্ষকে রাষ্ট্রীয় বাহিনীর হুমকি-হয়রানি বন্ধ করা ও ৫. এযাবৎ কালে সংঘটিত বৌদ্ধ ভিক্ষু হত‍্যার বিচারের দাবি জানানো হয়।

বিক্ষোভ সমাবেশে সঞ্চালনা করেন এলাকার যুবক লিটন চাকমা।


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.