রামগড়ে তিন সংগঠনের মিছিলে বিজিবি’র হামলায় আহত ৬

0
1

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি।। বিতর্কিত পঞ্চদশ সংবিধান সংশোধনীর ৬ বছর উপলক্ষে জাতিসত্তাসমূহর উপর বাঙালি জাতীয়তা চাপিয়ে দেয়ার প্রতিবাদে গতকাল শুক্রবার (৩০ জুন ২০১৭) খাগড়াছড়ির রামগড়ে গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের আয়োজিত বিক্ষোভ মিছিলে বিনা উস্কানীতে বিজিবি হামলায় কমপক্ষে ৬ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে।

Ramgarh1 শুক্রবার সকাল ১১টার সময় তিন সংগঠনের নেতা-কর্মী সমর্থকরা রামগড় স্টেডিয়ামে জড়ো হয়ে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশের আয়োজন করে।  এতে বক্তব্য রাখেন ইউপিডিএফ রামগড় ইউনিট এর সদস্য পরম বিকাশ ত্রিপুরা, পিসিপি রামগড় কলেজ শাখার সাধারণ সম্পাদক সুরেশ ত্রিপুরা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, রামগড় উপজেলা শাখার সভাপতি বাবু মারমা।

এর পর স্টেডিয়াম এলাকা থেকে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি রামগড় মাস্টার পাড়া প্রদক্ষিণ করে বাস স্টেশন সংলগ্নে পেীছলে বিজিবি সদস্যরা বিনা কারণে মিছিলে বাধা প্রদান করে।  এ সময় বিজিবি সদস্যরা মিছিলের ব্যানার কেড়ে নেয়ার চেষ্টা করে এবং অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ফায়ার ফায়ার বলে উচ্চস্বরে চিৎকার করে মিছিলে আগতদের উপর লাঠিচার্জ করে।

এতে মিছিলে অংশগ্রহণকারী ৬ জন আহত হয়। এ সময় আতংকিত হয়ে পালানোর সময় অনেকে সিএনজি, অটোরিক্সায় ধাক্কা লেগে মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। আহতরা হলেন- রহিন্দ্র ত্রিপুরা, রবিন্দ্র ত্রিপুরা, কমল ত্রিপুরা, বাইচো চাকমা, আনন্দ চাকমা ও রিপন চাকমা।

ঘটনার পর পুলিশ উক্ত ঘটনা স্থলে এসে মনাধন ত্রিপুরা(২৭), গেীতম ত্রিপুরা(১৯), নিহল কুমার ত্রিপুরা(২৬)-কে ধরে তাদের পকেটের টাকা ছিনিয়ে নেয়।

উক্ত হামলার ঘটনায় গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে বলেছে সরকারের বিভিন্ন বাহিনী সভা সমাবেশের গণতান্ত্রিক অধিকারের তোয়াক্কা না করে গ্রাম-গলির মাস্তান বাহিনীর মতো আচরণ করছে। সীমান্ত রক্ষায় নিয়োজিত আইনী একটি বাহিনীর এই ধরণের বেআইনী ও অবৈধ এবং পেশীশক্তি প্রদর্শনমূলক কার্যকলাপ গণতান্ত্রিক একটি দেশের জন্য লজ্জ্বাষ্কর।
————-
সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.