রামগড়ে র‌্যাব ও পুলিশের যৌথ অভিযানে অপহৃত সেনা সদস্যকে উদ্ধার, যুব লীগের তিন নেতা গ্রেফতার

0
1

সিএইচটিনিউজ.কম ডেস্ক:
Kidnapরামগড়(খাগড়াছড়ি): র‌্যাব ও পুলিশ যৌথ অভিযান চালিয়ে খাগড়াছড়ির রামগড়ের একটি বন বাগান থেকে অপহৃত সেনাবাহিনীর সদস্য নান্টু আলীকে সোমবার (৩১ মার্চ) বিকেলে আহত অবস্থায় তাকে উদ্ধার করেছে। অপহরণের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে র‌্যাব রামগড় উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হোসেন, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামিম মাহমুদ ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি শিপনকে গ্রেফতার করেছে।

বগুড়ার সেনাবাহিনীর এনসি একাডেমীতে কর্মরত সৈনিক নান্টু আলী নাটোর জেলার লালপুর উপজেলার কাদিম চিলান গ্রামের বাসিন্দা।

উদ্ধারের পর রামগড় থানায় সেনা সদস্য নান্টু স্থানীয় সাংবাদিকদের জানান, তিন মাস আগে মোবাইল ফোনে রামগড়ের ফারুক নামে এ ব্যক্তির সাথে তাঁর পরিচয় হয়। তার আমন্ত্রণে বেড়াতে এলে আটক করে পরিবারের কাছে তিন লক্ষ টাকা দাবী করে। পরিবারের পক্ষ থেকে বিষয়টি তার কর্মস্থল বগুড়া সেনাবাহিনীর এনসি একাডেমীর মেজর মঞ্জুরকে অবহিত করলে তিনি চট্টগ্রামস্থ র‌্যাব-৭ এর কর্মকর্তাকে অপহরণের সংবাদটি জানিয়ে তাকে উদ্ধারের অনুরোধ জানান। র‌্যাব-৭ এর মেজর জাহাঙ্গীরের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টিম সোমবার রামগড় থানা পুলিশের সহায়তায় উদ্ধার অভিযান চালায়। সোমবার সন্ধ্যায় বনবিথী বনবাগান থেকে আহত অবস্থায় অপহৃত সেনা সদস্য নান্টু আলীকে উদ্ধার করা হয়। তাকে উদ্ধারের পরপরই র‌্যাব ও পুলিশ রামগড় সদর থেকে উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ফারুক হোসেন, পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শামিম মাহমুদ ও ৫নং ওয়ার্ড যুব লীগের সভাপতি শিপনকে গ্রেফতার করে।

এদিকে, যুবলীগের এ তিন নেতাকে আটকের খবর পেয়ে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মোস্তফা হোসেন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও ইউপি চেয়ারম্যান কাজী আলমগীর হোসেন ও উপজেলা যুব লীগের সভাপতি ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল কাদের থানায় ছুটে যান। যুবলীগ নেতাদের গ্রেফতারের ব্যাপারে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আব্দুল কাদের বলেন, তারা রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের শিকার। রাত ৮টার দিকে র‌্যাব উদ্ধার হওয়া সেনা সদস্য ও গ্র্রেফতারকৃত যুবলীগ নেতাদের চট্টগ্রামস্থ র‌্যাব-৭ কার্যালয়ে নিয়ে যায়।

সেনাবাহিনীর সদস্যকে ডেকে এনে আটকে রেখে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টার ঘটনা ও এর সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে যুবলীগের নেতাদের গ্রেফতারের খবর ছড়িয়ে পড়লে রামগড়ে বেশ চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

সৌজন্যে: সিএইচটি টুডে ডটকম


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.