রুইলুই পর্যটন বিষয়ে সাজেক এলাকাবাসীর আবেদন

0
3

সিএইচটি নিউজ ডটকম
সাজেক প্রতিনিধি: “রুইলুই পর্যটন বিষয়ে সাজেক এলাকাবাসীর আবেদন” শিরোনামে  বৃহত্তর সাজেক ইউনিয়নবাসী একটি লিফলেট প্রচার করেছে।

আজ ৩ মার্চ ২০১৬ প্রচারিত লিফলেটে বলা হয়েছে, “সাজেক দুর্গম একটি এলাকার নাম। যা ভারতের মিজোরাম রাজ্যের সীমান্তবর্তী একটি এলাকা। এ অঞ্চলে যুগ যুগ ধরে পাহাড়ি ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র জাতিসত্তাসমূহ বসবাস করে আসছে। সাজেক এলাকার জাতিসত্তাসমূহের জীবন-জীবিকা, শিক্ষা-সংস্কৃতি, উৎপাদন পদ্ধতি অত্যন্ত সেকেলের।  তাছাড়া অধিকাংশ অধিবাসী জাতিগত ও রাষ্ট্রীয় দমন-পীড়নের শিকার হয়ে নিজ বাস্তুভিটা হারিয়ে এই অঞ্চলে মানবেতর জীবন-যাপন করছেন। প্রাকৃতিকভাবে দুর্গম কংকাল আকৃতির এই জায়গাটিকে ঘিরে শাসকচক্রের যে চক্রান্ত তা অত্যন্ত ভয়াবহ ও উদ্বেগজনকও বটে।  দুর্গম এই সাজেক ভূমিকে শাসকচক্র কৃত্রিমভাবে নৈসর্গিক অপরূপ লীলাভূমি আখ্যা দিয়ে পর্যটন ভূমিতে পরিণত করার ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। যা অনেকটা ‘কানা ছেলের নাম পদ্মলোচন’ নাম রাখার সামিল।”

পর্যটন কেন্দ্র কার স্বার্থে এমন প্রশ্ন রেখে এতে বলা হয়, “সরকার সেনাবাহিনী স্থানীয় অধিবাসীদের মতামত তোয়াক্কা না করে জোর পূর্বক তথাকথিত পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তুলেছে। স্থানীয় অধিবাসীদের উচ্ছেদ করে পর্যটন কেন্দ্র (মনোরঞ্জন কেন্দ্র) কার স্বার্থে?”

লিফলেটে আরো বলা হয়, “জাতিগত ও রাষ্ট্রীয় দমন-পীড়নের উদ্দেশ্যে গড়ে তোলা পর্যটন কেন্দ্রের কু-প্রভাবে সাজেক এলাকার বসবাসরত জাতিসত্তাসমূহের নিজ নিজ ঐত্যি, সংস্কৃতি আজ হুমকির মুখে পড়েছে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে আগত পর্যটকের আমদানী করা সংস্কৃতির আগ্রাসনে কবলে পড়েছে আমাদের সংস্কৃতি। ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে আজ সাজেকবাসী। পর্যটকদের বেপরোয়া আচরণের ফলে আমাদের সামাজিক পরিবেশও রসসাতলে যাবার পথে। পবিত্র সাজেক ভূমি আজ বেশ্যালয়ে পরিণত হচ্ছে। মাতাল পর্যটকদের হৈ-চৈ’য়ে কান ঝালাপালা হচ্ছে। পর্যটকদের কৃত্রিম উল্লাসের শব্দে জীবজন্তুরা দৌঁড়ে পালচ্ছে। সাধারণ মানুষের ধৈর্য্যের সীমা ছড়িয়ে গেছে। তথাকথিত ভদ্র(ভন্ড) পর্যটকরা দুই টাকার নোট ও চকলেট ছিটাচ্ছে। আমাদের ছেলে-মেয়েরা যেন ভিক্ষুকের মতো সেগুলো কুড়ায়! কী পরিহাস!!কী নিষ্ঠুর তাদের সংস্কৃতি!!!”

লিফলেটে পর্যটনসহ সকল প্রকার ধ্বংসযজ্ঞের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ-প্রতিরোধ গড়ে তোলার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

প্রচারিত লিফলেটটি নীচে সংযুক্ত করা হলো:

Sajek leaflet2


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.