রুমায় ৫ দিন ব্যাপী সেনা অভিযান, ৪ জনকে মারধর, একটি নতুন ক্যাম্প স্থাপন

0
527
প্রতীকী ছবি

বান্দরবান ।। বান্দরবানের রুমা উপজেলার ৪নং রেমাক্রী প্রাংসা ইউনিয়নের মেনরন পাড়া, লেনপুং ম্রো পাড়া, কিস্ত পাড়া (ত্রিপুরা পাড়া), বিশাই পাড়া (ত্রিপুরা পাড়া), মুংগহা পাড়া, রামদু পাড়া, জিগন পাড়া, এডেন পাড়া ও কালা পাড়া ইত্যাদি ৯টি গ্রামে ৫ দিন ব্যাপী এক সামরিক অভিযান চালানো হয় বলে জানা গেছে।

এছাড়া শামাখাল মারমার পাড়ায় ৪ জন জুম্ম গ্রামবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ-মারধর ও একটি নতুন ক্যাম্প স্থাপনের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত ১০ অক্টোবর থেকে ১৫ অক্টোবর ২০২০ পর্যন্ত রুমা গ্যারিসনের সেনা সদস্যরা এই অভিযান চালায় বলে জানা যায়। এতে এলাকার জনগণের মধ্যে ব্যাপক আতঙ্ক দেখা দেয় এবং স্থানীয় মানুষের চলাচলে ব্যাঘাত সৃষ্টি হয়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রুমা উপজেলার ৩নং গালেংগ্যা ইউনিয়ন ও ২নং রুমা ইউনিয়নে শামাখাল ও নাইটং মারমা পাড়াসমূহে অভিযান চলাকালে সেনা সদস্যরা শামাখাল মারমা পাড়ায় ৪ জন জুম্ম গ্রামবাসীকে জিজ্ঞাসাবাদ ও মারধর করেছে।

অভিযান শেষ করে সেনা সদস্যরা ১৫ অক্টোবর ব্যারাকে ফিরে গেলেও কিস্ত পাড়া নামক স্থানে একটি নতুন ক্যাম্প তৈরী করা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

গালেঙ্গা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের কিস্ত পাড়ার লগনা ত্রিপুরার ছেলে লরেন্স ত্রিপুরার জায়গা দখল করে উক্ত ক্যাম্প স্থাপন করা হয়েছে। ক্যাম্প তৈরীর জন্য লগনা ত্রিপুরা সেগুন বাগানের গাছ কেটে ফেলা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এর আগে গত ১০-১২ সেপ্টেম্বর ২০২০ টানা তিন দিন বিজিবি ও সেনাবাহিনী মিলিতভাবে বান্দরবান জেলার রুমা উপজেলার বিভিন্ন গ্রামে চিরুণী অভিযান চালিয়েছিল। এসময় তারা রুমার কালা পাড়া, অর্জুন পাড়া, এডেনপাড়া, রামদুপাড়া, আদিগা পাড়া, বিশাই পাড়া, লহপাড়া, কিস্ত পাড়া, চুংটাং পাড়া ও ঝিগন পাড়ায় এই অভিযান চালায়। (সূত্র: হিল ভয়েস)


Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.