লক্ষ্মীছড়িতে কঠিন চীবর দানোৎসবে আসা বৌদ্ধ ভিক্ষু বহনকারী গাড়িতে সেনাবাহিনীর তল্লাশি!

0
1

laxmichariলক্ষ্মীছড়ি : খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সদরে কুশিনগর বনবিহারে আয়োজিত কঠিন চীবর দানোসবে আসা রাঙামাটি রাজবন বিহারের ধর্মগুরু শ্রীম জ্ঞানপ্রিয় ভান্তে ও ফুরমোন আন্তর্জাতিক বন ভাবনা কেন্দ্রের বিহারাধ্যক্ষ শ্রীম ভৃগু ভান্তেকে বহনকারী গাড়ি (পাজেরো) গতিরোধ করে তল্লাশি চালিয়েছে লক্ষ্মীছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা।

গতকাল রবিবার (৩০ অক্টোবর) সন্ধ্যায় উপজেলা সদরের জুর্গাছড়ি ব্রীজ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, প্রতি বছরে ন্যায় এই বছরও লক্ষীছড়ি উপজেলা সদরের কুশিনগর বনবিহারে ১০ম কঠিন চীবর দানোসবের আয়োজন করা হয়। এ অনুষ্ঠানে রাঙামাটি রাজবন বিহারসহ বিভিন্ন বিহারের বৌদ্ধভিক্ষুদের আমন্ত্রণ(ফাং) করা হয়। অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করে পূণ্যার্জনের জন্য গতকাল সকাল থেকে বিভিন্ন এলাকার লোকজন বিহারে আসতে থাকে। কিন্তু এই সুন্দর ধর্মীয় পরিবেশকে বিনষ্ট করার জন্য সকাল থেকে লক্ষীছড়ি জোনের সেনা সদস্যরা বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করে ধর্মীয় অনুষ্ঠানে আসা লোকজনকে বিভিন্ন অশ্লীল ভাষায় কথাবার্তা বলতে থাকে এবং বিকালের দিকে অনুষ্ঠান স্থলে সেনারা গাড়ি নিয়ে টহল দিতে থাকে। যার ফলে পূণ্যার্থীদের চলাচলে বিঘ্ন সৃষ্টি হয় ও আতঙ্ক বিরাজ করে।

সন্ধ্যার দিকে অনুষ্ঠানের আমন্ত্রিত রাঙামাটি রাজবন বিহারের ধর্মগুরু শ্রীম জ্ঞানপ্রিয় ভান্তে ও ফুরমোন আন্তর্জাতিক বন ভাবনা কেন্দ্রের বিহারাধ্যক্ষ শ্রীম ভৃগু ভান্তে প্রাডো কোম্পানীর একটি পাজেরো গাড়ি যোগে লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সদরে এসে পৌঁছলে জুর্গাছড়ি ব্রীজের কাছে সেনাসদস্যরা তাদের বহনকারী গাড়িটি আটকায়। সেনারা ভান্তেদেরকে গাড়ি থেকে নামিয়ে গাড়ির সিট, ভান্তেদের ব্যবহৃত ব্যাগ, চাবেকসহ সকল জিনিসপত্র তল্লাশি চালায় এবং তাদের বডিও চেক করে। সেনারা ভান্তেদের ব্যবহৃত পানীয় বোতলগুলোও শুঁকে দেখে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে, লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার এক জনপ্রতিনিধি নাম প্রকাশ না করার শর্তে ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, পূজনীয় বৌদ্ধ ভিক্ষুদের সাথে সেনা সদস্যরা যে আচরণ করেছে তা ধর্মীয় অবমাননা ছাড়া আর কিছুই নয়। সেনাবাহিনীর এমন আচরণে বৌদ্ধ ভিক্ষুসহ এলাকার জনগণ খুবই মনক্ষুন্ন হয়েছেন এবং তারা এর নিন্দা জানিয়েছেন, বলেন তিনি।

আরেক জনপ্রতিনিধি এ প্রতিবেদককে বলেন, ধর্মীয় গুরুদের সাথে সেনা সদস্যদের এমন আচরণ কারোর কাম্য নয়। এটা খুবই নিন্দনীয়।
———————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.