লক্ষ্মীছড়িতে পিসিপি, এইচডব্লিউএফ ও ডিওয়াইএফ’র উপজেলা কাউন্সিল সম্পন্ন

0
1

IMG_20170212_104457লক্ষ্মীছড়ি: ‘ছাত্র-যুব-নারীর সম্মিলিত শক্তিই হোক অস্তিত্ব রক্ষার অন্যতম হাতিয়ার’ এই শ্লোগানে এবং  ‘দমন-পীড়ন, সাম্প্রদায়িক হামলা, নারী নির্যাতন ও ভূমি বেদখলের বিরুদ্ধে এগিয়ে এসো’ এই আহ্বানে খাগড়াছড়ির লক্ষ্মীছড়িতে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি), হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ)-এর উপজেলা শাখার কাউন্সিল সম্পন্ন হয়েছে।

আজ বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৭) সকাল ১০টায় লক্ষ্মীছড়ি সদর এলাকায় যৌথভাবে এই কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হয়।

কাউন্সিল অধিবেশন শুরুতে গণতান্ত্রিক আন্দোলনের সকল শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা ও সম্মান জানিয়ে এবং আলুটিলায় ট্রাক চাপায় নিহতের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

কাউন্সিল অধিবেশনের হিল উইমেন্স ফেডারেশন লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার সভাপতি রেশমি মারমার সভাপতিত্বে ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার যুগ্ম আহবায়ক ক্যম্রং মারমার সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, ইউনাইটেড পিপলৃস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সংগঠক অমর চাকমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক অনিল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক থুইক্যচিং মারমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ঢাকা মহানগর শাখার সভাপতি রোনাল চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক চৈতালী চাকমা ও লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা সদর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান প্রবীল চাকমা প্রমুখ। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দুইল্যাতলী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ত্রিলন চাকমা(দয়াধন), লক্ষ্মীছড়ি সদর ইউনিয়নের সদস্য সুভাষ চাকমা ও বিভিন্ন উপজেলা কলেজ থেকে পিসিপি, যুব ফোরাম ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের প্রতিনিধিবৃন্দ। কাউন্সিলে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক মংসাচিং মারমা।IMG_20170212_112200

কাউন্সিল অধিবেশনে ইউপিডিএফ নেতা অমর চাকমা বলেন, পৃথিবীর যে কোন ইতিহাসে দেখা গেছে জাতির ক্রান্তির লগ্নে ছাত্র-যুব-নারী সমাজ অধিকারের জন্য আন্দোলন করে থাকে। পার্বত্য চট্টগ্রামের ছাত্র-যুব-নারী সমাজও শাসক গোষ্ঠীর সকল ধরনের অন্যায়ের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে জুম্ম জাতির মুক্তির জন্য আন্দোলন করে যাচ্ছে।

তিনি, সকল ঘাত-প্রতিঘাত মোকাবিলা করে বৃহত্তর জাতীয় স্বার্থে নিজেদেরকে আদর্শিক লাইনে প্রতিষ্ঠিত করে আন্দোলন সংগ্রাম জোরদার করতে আহ্বান জানান।

পিসিপি নেতা অনিল চকমা বলেন, পাবর্ত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে পরিস্থিতি এখন খুবই নাজুক। সমতলে পুলিশ ও লাঠিয়াল বাহিনীকে লেলিয়ে দিয়ে আর পার্বত্য চট্টগ্রামের সেনাবাহিনীকে ব্যবহার করে এই সরকার ফ্যাসিবাদী শাসন কায়েম করে ছাত্র সমাজ তথা সারাদেশের জনগণের উপর নিপীড়ন নির্যাতন চালাচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, পিসিপি’র দীর্ঘ দিনের আন্দোলনের প্রথম দাবি সকল জাতিসত্তার নিজ নিজ মাতৃভাষায় প্রাথমিক শিক্ষার লাভের অধিকার নিশ্চিত করা। সরকার এই বছর (২০১৭ সালে) ৫টি জাতিসত্তার মাতৃভাষায় বই দেয়ার ঘোষণা দেয়। কিন্তু রাঙামাটি ও বান্দরবান জেলায় কিছু বই আসলেও খাগড়াছড়ি জেলায় এখনো পর্যন্ত কোন বই পৌঁছেনি।

তিনি, বর্তমান সরকারের বাংলাদেশ জাতীয় শিক্ষাক্রমের পাঠ্য বইয়ে ভুল ব্যাখা ও উগ্র সাম্প্রদায়িক চেতনা ও জাতিসত্তাসমূহের উপর অবমাননাকর বক্তব্যকে তীব্র সমালোচনা করেন এবং পিসিপি’র শিক্ষাসংক্রান্ত ৫ দফার আন্দোলন চালিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানান।

IMG_20170212_135009এইচডব্লিউএফ-এর নেত্রী চৈতালী চাকমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সরকারের তথাকথিত উন্নয়নের ফলে  পাহাড়ি নারীদের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়েছে। বিভিন্ন জায়গায় সরকারের স্থাপিত পর্যটনগুলোতে অনৈতিক কার্যকলাপসহ নানান ধরনের অপকর্ম দেখা যাচ্ছে, যা পাহাড়ে নারীদের মাঝেও প্রভাব বিস্তার করছে।

তিনি আরো বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি নারীরা কোথাও নিরাপদ নয়। এখানে রাষ্ট্রীয় বাহিনী ও সেটলার কর্তৃক প্রতিনিয়ত ধর্ষণ, নির্যাতন, খুন, গুম, অপহরণের মত ঘটনা ঘটলেও এখানকার প্রশাসন নিরব ভূমিকা পালন করে। যার কারণে অপরাধীরা বার বার একই ঘটনা ঘটানোর জন্য সাহস পায়।

যুব নেতা থুইক্যচিং মারমা বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে ছাত্র- যুব-নারী সমাজ দিন দিন সামাজিক অবক্ষয়ের দিকে ধাবিত হচ্ছে। আমাদেরকে সম্মিলিত ঐক্য শক্তির মাধ্যমে তা রোধ করতে হবে।

তিনি আরো বলেন, পাবর্ত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি জনগণ অসচেতনতার কারণে পাহাড়ি জাতি এখন অস্তিত্ব হুমকির সম্মুখিন হয়ে পড়েছে। বান্দারবন, রাঙ্গামাটি, খাগড়াছড়িতে আমরা জাতিগত, ভাষাগত ও ধর্মীয়ভাবে আগ্রাসনের শিকার হচ্ছি। আমাদেরকে সে বিষয়ে আরো বেশি সচেতন হতে হবে।

তিনি বলেন, পার্বত্য চট্টগ্রামে সেনা-সেটলারর ইউপিডিএফ ও তার সহযোগি সংগঠনগুলোর ন্যায়সঙ্গত গণতান্ত্রিক আন্দোলন দমনের জন্য বিভিন্ন ষড়যন্ত্র চলছে। তারা প্রকাশ্যে ও মিডিয়ায় বিবৃতি দিয়ে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।  এদের এমন কর্মকান্ডের বিরুদ্ধে পার্বত্য চট্টগ্রামের ছাত্র-যুব-নারী সমাজকে সোচ্চার হতে হবে এবং আন্দোলন জোরদার করতে হবে।

বক্তারা, সরকার ও সেনাবাহিনী কর্তৃক পার্বত্য চট্টগ্রামের দমন-পীড়ন, সাম্প্রদায়িক হামলা, নারী নির্যাতন ও ভূমি বেদখলসহ  সকল ধরনের ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করে ছাত্র-যুব-নারী সমাজ তথা জুম্ম জনগণের ঐক্যবদ্ধ শক্তি গড়ে তুলে জুম্ম জাতির মুক্তির সনদ পূর্ণস্বায়ত্তশাসনের সংগ্রামকে বেগবান করার জন্য আহ্বান জানান।

পরে কাউন্সিল অধিবেশনের উপস্থিত সকলে সর্বসম্মতিক্রমে রাজ চাকমাকে সভাপতি, নয়ন চাকমাকে সাধারণ সম্পাদক ও পাইসুই মং মারমাকে  সাংগঠনিক সম্পাদক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ, রিপন চাকমাকে সভাপতি, ক্যম্রং মারমাকে সাধারণ সম্পাদক ও কিরণ চাকমা সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৫ সদস্য বিশিষ্ট গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম ও রেশমি মারমাকে সভাপতি, থুইসুনু মারমাকে সাধারণ সম্পাদক ও চন্দনা চাকমাকে সাংগঠনিক সম্পাদক করে ১৩ সদস্য বিশিষ্ট হিল উইমেন্স ফেডারেশনের নতুন উপজেলা কমিটি গঠিত হয়।

নতুন কমিটিকে শপথবাক্য পাঠ করান পিসিপি কেন্দ্রীয় কমিটি সাধারণ সম্পাদক অনিল চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের কেন্দ্রীয কমিটি সাংগঠনিক সম্পাদক থুইক্যচিং মারমা ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের খাগড়াছড়ি জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক চৈতালী চাকমা।

পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের লক্ষ্মীছড়ি উপজেলা শাখার দপ্তর সম্পাদক হৃদয় চাকমা স্বাক্ষরিত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়।
——————-

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.