সংস্কার ও নব্য মুখোশ বাহিনীর ৩ সন্ত্রাসীকে অস্ত্রসহ আটকের পর ছেড়ে দিয়েছে সেনাবাহিনী!

0
1

লংগদু প্রতিনিধি :  লংগদু ও দীঘিনালা সীমান্তবর্তী মেরুং এর জুরোপানিছড়া এলাকা থেকে সংস্কাপন্থী জেএসএস ও নব্য মুখোশ বাহিনীর ৩ সন্ত্রাসীকে  অস্ত্রসহ আটক করার পরও লংগদু জোনের সেনাবাহিনী তাদের ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গতকাল শুক্রবার (২৭ জুলাই ২০১৮) সকাল ৯টায় লংগদু জোনের (দুর্ভেদ্য একুশ বীর) এর আওতাধীন ইয়ারেংছড়ি সেনা ক্যাম্পের একদল সেনা সদস্য জুরাপানিছড়া এলাকার লংগদু যাওয়ার সড়কের পাশে রেন্টিনা বাপ দোকানের পিছনে ভদ্র রঞ্জন চাকমা বাড়ি ঘেরাও করে। সেনারা সেখান থেকে সংস্কাবাদী জেএসএস’র কালেক্টর মেজাং হুলো চাকমা(৩২), পিতা- অজ্ঞাত, গ্রাম- আজ্যমা ছড়া ও সহকারী কালেক্টর রাহুল চাকমা(২৮), পিতা- মৃত নয়ন চন্দ্র চাকমা, গ্রাম- করল্যাছড়ি এবং মুখোশ বাহিনীর কালেক্টর রুবেল চাকমা(৩০), গ্রাম জুরোপানি ছড়া, এই তিন জনকে ১ টি থ্রি-টু পিস্তল, ১টি এলজি এবং চাঁদা আদায়ের রসিদ বইসহ আটক করে। এরপর তাদেরকে প্রথমে ইয়ারেংছড়ি ক্যাম্পে ও পরে লংগদু জোনে নিয়ে যাওয়া হয়।

পরে সন্ধ্যা ৭টায় ইয়ারেংছড়ি ক্যাম্প কমাণ্ডার এলাকার মুরুব্বী- ১) গোপা লাল চাকমা (ইউপি মেম্বার), ২) শান্তি প্রিয় চাকমা (ইউপি মেম্বার), ৩) স্মরণিকা চাকমা (আটরকছড়া ইউপি মেম্বার) এবং ৪) পদ্ম লোচন চাকমা (কার্বারী, সাং- মনের মানুষ, মেরুং ইউপি)-কে  ক্যাম্পে ডেকে পাঠিয়ে উপরের নির্দেশে আটক অস্ত্রধারীদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে বলে জানান। এ সময় তাদের সবাইকে একত্রে ভিডিও ধারণ ও ছবি তুলে পরবর্তীতে যে কোন বিষয়ে যোগাযোগ করার জন্য সকলের মোবাইল নম্বর খুঁজে নেন।

এদিকে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় আটক সন্ত্রাসীদের লংগদু জোন থেকে সেনারা তাদের একটি পিক-আপে করে লংগদু থানায় নিয়ে যায়। সেনারা থানা কর্তৃপক্ষের সাথে ঘন্টা ব্যাপী আলোচনা করে। তবে কি আলোচনা হয়েছে তার বিস্তারিত জানা যায়নি। এর কিছুক্ষণ পর সেনাবাহিনী আবার তাদের পিক-আপে করে আটককৃতদের নিয়ে যায়  এবং সংস্কারবাদী জেএসএস’র লংগদু থানা শাখার সভাপতি অনঙ্গ লাল চাকমাকে ডেকে আটককৃত সন্ত্রাসীদের তার হেফাজতে দিয়ে দেয়।

আজ শনিবার সকালে জনৈক এক সেনা কর্মকর্তা মোবাইলে কল করে “অস্ত্রসহ আটককৃতদের গতকাল রাতে মুচলেকা নিয়ে সংস্কারের লোকদের হাতে ছেড়ে দেয়া হয়েছে” বলে এলাকার জনপ্রতিনিধিদের জানান।

নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক এলাকার একাধিক মুরুব্বী ক্ষোভ প্রকাশ করে এই প্রতিবেদককে জানান, সংস্কার-মুখোশ সন্ত্রাসীরা অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে মেরুং, মনের মানুষ, আটরকছড়াসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় জনগণের কাছ থেকে চাঁদা দাবিসহ নানা অপকর্ম করছে। চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে অপহরণসহ প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করছে। অথচ অস্ত্রসহ আটক করার পরও সেনাবাহিনী সন্ত্রাসীদের ছেড়ে দিয়েছে।

সেনাবাহিনীর সাথে যোগসাজশ থাকার কারণে সংস্কার ও মুখোশ সন্ত্রাসীরা এলাকার জনমনে আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে তারা মন্তব্য করেন।
———————–
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.