সদ্য কারামুক্ত পিসিপি’র কেন্দ্রীয় নেতা বিনয়ন ও অনিল চাকমাকে সংবর্ধনা

0
0

img_20161126_110452রাঙামাটি : খাগড়াছড়ি জেল থেকে সদ্য জামিনে কারামুক্ত পিসিপি’র কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি বিনয়ন চাকমা ও সাংগঠনিক সম্পাদক অনিল চাকমাকে সংবর্ধনা দিয়েছে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)।

গতকাল  শনিবার (২৬ নভেম্বর) সকাল ১১টায় কাউখালী উপজেলায় পানছড়িতে উক্ত সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানের শুরুতে সদ্য কারামুক্ত পিসিপি কেন্দ্রীয় নেতা বিনয়ন ও অনিল চাকমাকে ফুলের তোরা দিয়ে সংবর্ধনা দেয়া হয়। ফুলের তোরা প্রদান করেন পিসিপি’র ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা ও গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি অংগ্য মারমা।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে পিসিপি’র কেন্দ্রীয় অর্থ সম্পাদক রতন স্মৃতি চাকমার সঞ্চালনায় সভাপতিত্ব করেন পিসিপি’র কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা। সংবর্ধনায় শুরুতে কারা জীবনের অভিজ্ঞতা বর্ণনা করে বক্তব্য রাখেন বিনয়ন ও অনিল চাকমা। এতে আরো বক্তব্য রাখেন, ইউপিডিএফ সংগঠক রিপন চাকমা, গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম কেন্দ্রীয় সভাপতি অংগ্য মারমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশন কাউখালী থানা শাখার সভাপতি কুহেলী চাকমা।

এছাড়া সংহতি জানিয়ে আরো বক্তব্য রাখেন ৩ নং ঘাগড়া ইউনিয়ন চেয়ারম্যান জগদ্বীশ চাকমা, ২ নং ফটিকছড়ি ইউনিয়ন চেয়ারম্যান ধন কুমার চাকমা, পানছড়ি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুনীল কান্তি তালুকদার।img_20161126_110544

বক্তারা বলেন, সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিয়ে ছাত্র-জনতার উপর ব্যাপক ধড়-পাকড়, নির্যাতন ও মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করে চলেছে। কিন্তু তা সত্তে¡ও সেনা-প্রশাসন যতই দমন-পীড়ন করুক না কেন আন্দোলন দমন করতে পারবে না, পারবে না প্রতিবাদী কন্ঠকে স্তব্দ করতে। পিসিপি’র দীর্ঘ প্রতিরোধ সংগ্রামী ইতিহাস তাই প্রমাণ করে। সেনা প্রশাসন অতীতে ব্যাপক দমন-পীড়ন চালিয়েও পিসিপি’র প্রতিবাদী কন্ঠকে রুদ্ধ করতে পারেনি, বর্তমানেও নিপীড়ন-ধর-পাকড় করে পিসিপিকে তার সংগ্রামের ঐতিহ্য থেকে বিচ্যুত করতে পারবে না।

বক্তরা আরো বলেন, খাগড়াছড়ি ক্যান্টনমেন্টের সেনা কর্তৃক সাংবাদিক সম্মেলনের মত নিরীহ কর্মসূচি থেকে পিসিপি নেতৃদ্বয়কে গ্রেফতার ও ক্যান্টনমেন্টে অমানুষিক বর্বর নির্যাতনের ঘটনা থেকে বুঝা যায় পার্বত্য চট্টগ্রামে জনগণের ঘারের ওপর কি ধরণের বর্বর জংলি শাসন জারি রয়েছে। সেনাদের এ ধরণের আচরণ নাগরিক ও গণতান্ত্রিক অধিকারের ওপর চরম আঘাত হিসেবে বক্তারা মন্তব্য করেন।
—————

সিএইচটি নিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.