সাজেকের মুরুব্বীদের প্রেস ব্রিফিং করতে বাধ্য করলো সেনা মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীরা

0
705

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি ।।  সেনা মদদপুষ্ট সন্ত্রাসীরা সাজেকের মুরুব্বীদের খাগড়াছড়িতে ডেকে এনে জিম্মি করে প্রেস ব্রিফিং ও সাজেক ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটি থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিতে বাধ্য করেছে।

জানা যায়, আজ বৃহস্পতিবার (৩১ ডিসেম্বর ২০২০) সকালে সন্ত্রাসীরা মিটিংয়ের কথা বলে সাজেক ইউপি’র সাবেক চেয়ার‌ম্যান অতুলাল চাকমা, বর্তমান মেম্বার পরিচয় চাকমা, লেন্দ ত্রিপুরা ও সুশীলা চাকমা, ব্যবসায়ী খরেন্দ্র চাকমা ও কার্বারী বিশ্বমনি চাকমাকে দীঘিনালায় ডেকে নিয়ে আসে। এর মধ্যে অতুলাল চাকমা সাজেক ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটির আহ্বায়ক, বাকিরা কমিটির সদস্য।

পরে তাদেরকে দীঘিনালা থেকে খাগড়াছড়ির তেঁতুলতলা এলাকায় নিয়ে এসে জিম্মি করা হয়। এ সময় তাদেরকে বলা হয়, ‘হয় প্রেস ব্রিফিং করে ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটি থেকে পদত্যাগের ঘোষণা দিতে হবে, নতুবা প্রত্যেককে দুই লক্ষ টাকা জরিমানা দিতে হবে’। এতে তারা নিরুপায় হয়ে সন্ত্রাসীদের কথা মেনে নিতে বাধ্য হন।

এরপর সন্ত্রাসীরা তাদেরকে স্লুইস গেট এলাকায় প্লেংসা রেস্টুরেন্টে নিয়ে গিয়ে একটি লিখিত কাগজ ধরিয়ে দেয়। পরে সেখানে ‘ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ সাজেক কমিটির প্রেস ব্রিফিং’ লেখা ব্যানার টাঙিয়ে কতিপয় সাংবাদিককে ডেকে এনে তাদের (সাংবাদিকদের) সামনে ধরিয়ে দেয়া লিখিত কাগজটি পড়তে বাধ্য করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাজেক ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটির নেতৃবৃন্দ বলেন, ‘আমাদেরকে মিটিংয়ে কথা বলে দীঘিনালায় ডাকা হয়। সেখানে গেলে পরে আমাদের খাগড়াছড়িতে নিয়ে গিয়ে একটি রেস্টুরেন্টে প্রেস ব্রিফিংয়ে উপস্থিত হতে বাধ্য করা হয়। এরপর একটি লিখিত কাগজ ধরিয়ে দিয়ে সেটি উপস্থিত সাংবাদিকদের সামনে পড়তে বাধ্য করা হয়। এ অবস্থায় আমাদের আর কোন উপায় ছিল না’।

এছাড়াও সন্ত্রাসীরা তাদেরকে ‘ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটির নামে আর কোন কর্মসূচি করা যাবে না’ মর্মে নিষেধাজ্ঞা প্রদান করেছে বলে তারা জানান।

মূলত ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত প্রতিরোধ কমিটি একটি সচেতন সামাজিক উদ্যোগ। পার্বত্য চট্টগ্রামে দীর্ঘ সময় ধরে চলা ভ্রাতৃঘাতি সংঘাত বন্ধ ও নতুন করে যাতে আর সংঘাত না হয় সেজন্য দলগুলোর কাছে দাবি-দাওয়া উত্থাপন ও সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করতে এলাকার সচেতন জনগণের উদ্যোগে এই কমিটি গঠন করা হয়। খাগড়াছড়ির পানছড়িতে প্রথম এই কমিটি গঠিত হয় এবং তারা সংঘাত বন্ধের দাবি জানিয়ে সভা-সমাবেশও করে। পরে সাজেকসহ অন্যান্য জায়গায়ও কমিটি গঠিত হয়।

 


সিএইচটি নিউজে প্রকাশিত/প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ,ভিডিও, কনটেন্ট ব্যবহার করতে হলে কপিরাইট আইন অনুসরণ করে ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.