পিসিপির প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সমাবেশে সেনাবাহিনীর হামলার প্রতিবাদে

সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্যের সমাবেশ

0
5

ঢাকা : খাগড়াছড়ির দীঘিনালায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ২৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সমাবেশের প্রস্তুতি চলাকালে সেনাবাহিনী কর্তৃক সমাবেশ স্থলে হামলা ও সমাবেশের জন্য নির্মিত প্যান্ডেল ভেঙ্গে দিয়ে সমাবেশ স্থল ঘেরাও করে রেখে প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সমাবেশ পালন করতে না দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে সাম্রাজ্যবাদ বিরোধী ছাত্র ঐক্য।

20160520_173859শুক্রবার (২০ মে) বিকেল ৫ টায় প্রেস ক্লাবের সামনে অনুষ্ঠিত সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশনের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সভাপতি হাসান মাহমুদ। এছাড়া সমাবেশে আরও উপস্থিত ছিলেন ছাত্র গণমঞ্চের সাধারন সম্পাদক নুর সুমন, বিপ্লবী ছাত্র যুব আন্দোলনের সভাপতি জাকি সুমন, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সংগঠক রোনাল চাকমা, ইউপিডিএফ এর সংগঠক মাইকেল চাকমা ও জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের সাধারন সম্পাদক ফাইজুল হাকিম।

সমাবেশে নেতৃবৃন্দ পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর সমাবেশের প্রস্তুতি চলাকালে সেনা বাহিনী কর্তৃক এই ন্যাক্কারজনক হাম্লার তীব্র প্রতিবাদ জানান। নেতৃবৃন্দ বলেন, পাহাড়ে দিনের পর দিন ধরে পাহাড়ি জনগনের উপর এ দেশের সরকার ও রাষ্ট্র তার আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও সেনাবাহিনী দিয়ে যে অত্যাচার ,নিপীড়ন ও নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে তা আজ এক চরম অবস্থায় এসে পৌঁছেছে।

দিঘীনালায় সেনাবাহিনির এ ধরনের বর্বর আচরণের তীব্র নিন্দা জানিয়ে তারা বলেন এই দেশের সরকার ও রাষ্ট্র দীর্ঘদিন ধরে একের পর এক পাহাড়ি জনগণের স্বার্থ বিরোধী কর্মকাণ্ড ও আইন প্রয়োগের মাধ্যমে তাদের স্বাধীন জনমত গঠনের অধিকারকে তীব্রভাবে দমন করে আসছে। নেতৃবৃন্দ বলেন ১৯৭১ সালে মুক্তি যুদ্ধে পাকিস্তান সরকার তার সেনাবাহিনী দিয়ে এদেশের জনগনের উপর যে চরম কায়দার নির্যাতন ও নিপীড়ন চালিয়ে আসছিল তার উত্তরসুরী হিসেবে এই দেশের সরকার ও রাষ্ট্রও পাহাড়ি জনসাধারনের উপর ঠিক একই কায়দায় নিপীড়ন ও নির্যাতন চালিয়ে যাচ্ছে । তাই জনগণের সরকার – সংবিধান গঠনের মাধ্যমে একটি জনগণতান্ত্রিক রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠায় পারে এই জুলুমের থেকে নিস্তার এনে দিতে।20160520_175636

নেতৃবৃন্দ আরও বলেন, আজ যখন পাহাড়ে জনগনের উপর চরম মাত্রার নিপীড়ন চালানো হচ্ছে তখন সমগ্র দেশের জনগনের উপরেই জেঁকে বসেছে এক ভয়াবহ ফ্যাসিবাদী দুঃশাসন। আজ দেশের কোথাও জনগনের কোন নিরাপত্তা নেই, জনগনের উপর কোন অন্যায় অবিচারের আজ আর ন্যায় বিচার হয় না। বর্তমান আওয়ামী সরকার তার আইন শৃঙ্খলা বাহিনী দিয়ে বল প্রয়োগ করে ও বিভিন্ন জন বিরোধী আইন করে জনগনের মত প্রকাশের স্বাধীনতার উপর এক বাকশালী একনায়কতন্ত্র  চাপিয়ে দিয়েছে। সর্বশেষ বাঁশ খালিতে পুলিশের গুলিতে ৪ জনের মৃত্যুর ঘটনা তারই স্বাক্ষর বহন করে। এছাড়া কুমিল্লায় ক্যান্টনমেন্টের ভিতরে তনু নামের এক কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ করে হত্যা করার ঘটনাও সরকারের এই নৈরাজ্যে ও জনগণের স্বার্থ বিরোধিতারই ফলাফল।

সমাবেশে থেকে নেতৃবৃন্দ এই ফ্যাসিবাদী দুঃশাসনের ও জনগনের উপর এই নিপীড়ন ও নির্যাতনের বিরুদ্ধে ছাত্র–জনতা সর্বোপরি সমগ্র দেশের আপামর জনসাধারণকে ঐক্যবদ্ধ সংগ্রাম গড়ে তোলার আহ্বান জানান এবং পাহাড় থেকে সেনাবাহিনীর সকল রকম তৎপরতা বন্ধ করার দাবি জানান।
————–

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।

Print Friendly, PDF & Email

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.