সেনা কর্তৃক চাকমারাণী লাঞ্ছিত, ক্ষমা চাইতে হবে–ইউপিডিএফ

0
0

ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ)-এর সভাপতি প্রসিত বিকাশ খীসা ও সাধারণ সম্পাদক রবি শংকর চাকমা আজ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৮ শুক্রবার সংবাদ মাধ্যমে দেয়া এক বিবৃতিতে সেনা কর্তৃক চাকমারাণী ইয়েন ইয়েনকে লাঞ্ছিত করা ও বন্দুকের নলের মুখে রাঙ্গামাটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ধর্ষণ ও যৌন সহিংসতার শিকার দুই মারমা বোনকে তুলে-নেয়ার ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ ও নিন্দা জানিয়েছেন।

এ ন্যাক্কারজনক ঘটনাকে সভ্য সমাজের কলঙ্ক ও কোন অবস্থাতেই মেনে নেয়া যায় না মন্তব্য করে নেতৃদ্বয় বলেন, সেনাবাহিনীরর পক্ষ থেকে চাকমারাণীর নিকট অবশ্যই ক্ষমা চাইতে হবে এবং দোষী সেনা সদস্যদের অবিলম্বে আইনানুগ ব্যবস্থার আওতায় আনতে হবে।

ঘটনার বর্ণনা দিয়ে ইউপিডিএফ নেতৃদ্বয় বিবৃতিতে বলেন, ‘গতকাল সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে সেনা-পুলিশ-বিজিবির একটি যৌথ দল রাঙামাটি হাসপাতালে প্রবেশ করে যৌন নিগৃহীত দুই বোনের সেবায় নিয়োজিত স্বেচ্ছাসেবকদের মারধর করে একটি রুমে আটকে রাখে এবং সেখানে অবস্থানরত চাকমা সার্কেলের রাণী ইয়েন ইয়েনকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে। তারা হাসপাতালের বাতি নিভিয়ে ধর্ষিত দুই বোনকে তুলে নিয়ে যায়। উল্লেখ্য, চাকমারাণী ধর্ষিতদের চিকিৎসার তত্ত্বাবধানের পাশাপাশি মানসিক শক্তি যুগিয়ে আসছিলেন, সেনাচক্রের নিকট এটাই তার ওপর ক্ষোভের কারণ।’

ইউপিডিএফ নেতৃদ্বয় যুক্ত বিবৃতিতে আরও বলেন, ‘পার্বত্য চট্টগ্রামে ফৌজি অপশাসনের দোর্দ- প্রতাপ ও অন্যায় কর্তৃত্ব এতটা ছাড়িয়ে গেছে যে তারা চাকমা সার্কেলের রাণীর মতো ব্যক্তিকেও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করতে পরোয়া করছে না। বিলাইছড়ির সাধারণ মারমা তরুণী এদের কাছে মানুষ বলে পরিগণিত নয়, তা পাকিস্তানিমনা সেনারা উলঙ্গভাবে প্রমাণ করে দিয়েছে। সেনাবাহিনীর পাকিস্তানিমনা অংশটির এ ধরনের অপকর্মে দুর্নীতিগ্রস্ত শাসকগোষ্ঠী বরাবর ইন্ধন যুগিয়ে আসছে, এদের নিষ্ঠুর দমন-পীড়ন থেকে রক্ষার্থে জনগণকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে আন্দোলন গড়ে তোলা ছাড়া অন্য কোন বিকল্প নেই বলে তারা মন্তব্য করেন।
——————
সিএইচটিনিউজ ডটকম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্রউল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.