২০ মে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

0
0

বিশেষ প্রতিবেদক, সিএইচটিনিউজ.কম
PCP flag2আগামী ২০ মে বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রাম পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ(পিসিপি)-এর ২৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী। ১৯৮৯ সালের ২০ মে ঢাকায় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ আত্মপ্রকাশ করে। ৪ঠা মে লংগদু গণহত্যার প্র্রতিবাদ জানাতে ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ দেশের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে নানা নামে গঠিত পাহাড়ি ছাত্র সংগঠনের প্রতিনিধিরা ঢাকায় মিলিত হন এবং স্ব স্ব সংগঠনের বিলোপ ঘটিয়ে একটি মাত্র ছাত্র সংগঠন গড়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। এভাবেই সেদিন (২০ মে ১৯৮৯) জন্ম হয় পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের। এর পরদিন অর্থাৎ ২১ মে ঢাকায় রাজপথে প্রথম বারের মতো পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের ব্যানারে লংগদু গণহত্যার প্রতিবাদে ঐতিহাসিক মৌন মিছিল বের করা হয়।

লংগদু গণহত্যার রক্তবীজ থেকে জন্ম নেয়া পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ পার্বত্য চট্টগ্রামে অধিকারহারা জনগণের আন্দোলনে এক নতুন মাত্রা যোগ করে।

সরকার পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের নেতৃত্বে পরিচালিত গণআন্দোলন মোকাবিলার জন্য বিভিন্ন দমনমুলক নীতি গ্রহণ করে। এর মধ্যে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের শত শত নেতা কর্মী ও সমর্থককে আটক করা, তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা ঝুলিয়ে দেয়া, মিছিল-সমাবেশে বাধা দেয়া, সেটলারদের দিয়ে চরম প্রতিক্রিয়াশীল সংগঠন খাড়া করে লেলিয়ে দেয়া, বখাটে ও মাদকাসক্ত পাহাড়ি যুবকদের দিয়ে মুখোশ বাহিনী গঠন ইত্যাদি। কিন্তু এত বাধা বিপত্তি ও দমন পীড়ন সত্ত্বেও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের অগ্রযাত্রাকে রুদ্ধ করতে সরকার চরমভাবে ব্যর্থ হয়। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ জনগণের আন্দোলনের এক গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ারে পরিণত হয়।

কিন্তু ১৯৯৭ সালে পার্বত্য চুক্তি স্বাক্ষরের প্রাক্কালে জনসংহতি সমিতির প্রধান সন্তু লারমা লক্ষ লক্ষ টাকা খবচ করে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সুবিধাবাদী অংশকে নিজের পক্ষে বাগিয়ে নেন ও পরে তাদেরকে দিয়ে দুই নাম্বারী পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ গঠন করেন। এই দুই নাম্বারী পিসিপি সরকারের লেজুড় সংগঠনে পরিণত হয়।

PCP posterঅপরদিকে, মূল ধারার পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ১৯৯৮ সালের ডিসেম্বরে আন্দোলনরত সংগঠন পাহাড়ি গণ পরিষদ ও হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাথে যৌথভাবে ঢাকায় এক পার্টি প্রস্তুতি সম্মেলন আয়োজন করে এবং ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট(ইউপিডিএফ)গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। বর্তমানে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ ইউপিডিএফ-এর সাথে অন্তর্ভুক্ত হয়ে জনগণের অধিকার পূর্ণস্বায়ত্তশাসন আদায়ের সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আগামী ২০ মে বন্দর নগরী চট্টগ্রামে ছাত্র সমাবেশ ও র‌্যালির আয়োজন করা হয়েছে। এ উপলক্ষে পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ পোস্টার প্রকাশ করেছে। জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের চট্টগ্রাম অঞ্চলের সভাপতি এ্যাডভোকেট ভুলন ভৌমিক আন্দরকিল্লার জে.এম.সেন হলে সকাল ১১টায় প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠান উদ্বোধন করবেন বলে সংগঠন সূত্রে জানা গেছে। পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি থুইক্যচিং মারমা এতে সভাপতিত্ব করবেন।

এবারের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর আহ্বান:
শাসকগোষ্ঠীর সাথে আঁতাতকারী জাতীয় বেঈমানদের আন্দোলন নস্যাতের ষড়যন্ত্র ভেস্তে দিন!
বন্দীমুক্তি, ধরপাকড়, দমন-পীড়ন বন্ধ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ১১ নির্দেশনা বাতিল ও “অপারেশন উত্তরণ” তুলে নেয়ার দাবিতে ছাত্র সমাজ এক হও!

উক্ত সমাবেশ ও র‌্যালিতে অংশগ্রহণ করার জন্য পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে ছাত্র সমাজের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।
—————————

সিএইচটিনিউজ.কম’র প্রচারিত কোন সংবাদ, তথ্য, ছবি ব্যবহারের প্রয়োজন দেখা দিলে যথাযথ সূত্র উল্লেখপূর্বক ব্যবহার করুন।


Print Friendly, PDF & Email

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.